আপন বোনের সঙ্গে নেইমারের অবৈধ সম্পর্ক! | ধামইরহাটে ভাই-বোনের অবৈধ সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে বাড়ি ছাড়া!

চোট সারিয়ে মাঠে ফিরেছেন নেইমার। কোস্টারিকার বিরুদ্ধে দেশের জার্সিতে গোলও করেছেন। তারপর মাঠে হাউমাউ করে কান্নায় ভেঙে পড়েন। ভাইয়ের মাঠে এমন দৃশ্য দেখে অজ্ঞান হয়ে পড়েন বোন রাফায়েলা বেকরান। ফলে রাফায়েলাকে নিয়েও শুরু হয়েছে হইচই। ভাইয়ের সঙ্গে বোনও শিরোনামে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম নেইমার ও তার বোন রাফায়েলার অতিঘনিষ্ঠতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। ভাইয়ের সঙ্গে তার সম্পর্কের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে আপত্তিকর তথ্য প্রকাশ করা হচ্ছে।

নেইমার তার নিজের বোনের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িত বলে দাবি করা হচ্ছে ওইসব সংবাদমাধ্যমে। ফলে এ নিয়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।‘সাইডওমেক্স এন্টারটেনমেন্ট’ নামের একটি অনলাইন মিডিয়ার প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, নেইমার ‘ইনসেস্ট’ (রক্তসম্পর্কের মধ্যে যৌনতা)। তাদের সংবাদে বলা হয়েছে, নেইমার নিজের গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে খোলাখুলি থাকলেও বোনের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে চরম গোপনীয়তা পালন করেন।

উদাহরণ হিসেবে বলা হয়েছে, ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নিজের বোনের ভীষণই ঘনিষ্ঠ। বোন রাফায়েলার জন্মদিন ১১ মার্চ। নেইমার শেষ তিন বছরে বোনের জন্মদিনে উপস্থিত থাকার জন্য মিথ্যা কথা বলে দেশে ফিরে আসেন। চলতি বছরে বোনের জন্মদিন আসার আগেই চোটের কারণ দেখিয়ে তিনি সরাসরি ব্রাজিলে চলে আসেন। ওই সময়ে রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় পর্বের খেলা ছিল পিএসজির। প্রথম পর্বে পিএসজি ১-৩ গোলে হেরে বসেছিল। দ্বিতীয় পর্বে গোলের ঘাটতি মিটিয়ে পিএসজি রিয়াল বধ করে পরের পর্বে অগ্রসর হতে পারবে, তেমন কেউই আশা করেনি। চোট থাকলেও তিনি দলের সঙ্গে থাকতে পারতেন। তা না করে সবাইকে অবাক করে দিয়ে তিনি ব্রাজিল পাড়ি দিয়েছিলেন। যা নিয়ে ফরাসি মিডিয়ায় বেশ লেখালেখি হয়েছিল।

প্রশ্ন উঠেছিল, নেইমার সরাসরি বোনের জন্মদিনের কথা ক্লাবকে জানিয়ে দেশে ফিরতেই পারতেন। এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বোনের জন্মদিন গোপন করে ঘরে ফেরাতেই অস্বস্তিকর প্রশ্ন উঠে আসছে। পাশাপাশি রয়েছে ট্যাটু কাণ্ডও। নেইমারের ডান হাতে রয়েছে বোন রাফায়েলার ট্যাটু। ২০১৫ সালে সেই ট্যাটু করিয়েছিলেন নেইমার। সেই ছবি আবার ঘটা করে বোনের সঙ্গে তুলে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেছিলেন।

এছাড়া আপত্তিকর প্রশ্ন ওঠার পেছনে রয়েছে রাফায়েলার ইনস্টাগ্রামে নেইমারের সঙ্গে একাধিক ঘনিষ্ঠ ছবি। পালটা বেকরান আবার নেইমারের চোখের ছবি ট্যাটু করেছিলেন নিজের পিঠে। যা মোটেই স্বাভাবিক নয় বলে দাবি আন্তর্জাতিক প্রচারমাধ্যমের। খবরে দাবি করা হয়েছে, নেইমারের বার্সেলোনা ছাড়ার পেছনেও বোনের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক! সেই যুক্তিতে বলা হয়েছে, ফ্রান্সে নিকটাত্মীয়দের মধ্যে যৌন সংসর্গ অপরাধ নয়। সেই কারণেই অন্যান্য বড় ক্লাবের অফার থাকলেও নেইমার বেছে নিয়েছিলেন পিএসজিকে। বারবার এমন সন্দেহ প্রচারমাধ্যমে উঠলেও নেমার কিংবা বোন রাফায়েলা বেকরান— কেউ এ সম্পর্কের ব্যাপারে কোনো রকম মন্তব্য করেননি।

ধামইরহাটে ভাই-বোনের অবৈধ সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে বাড়ি ছাড়া!

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর ধামইরহাটে অবৈধ সম্পর্ক ও লম্পটগিরি দেখে ফেলায় এক অসহায় গৃহবধূকে বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছে স্বামী ও শাশুড়ী। ধামইরহাট পৌরসভার অন্তর্গত ফার্শিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে সত্য ঘটনা প্রকাশ করায় অসহায় গৃহবধূকে বাড়ী থেকে বের করে দেওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মিমাংসার চেষ্টা করছিলেন।

জানা গেছে,ধামইরহাট পৌরসভার ফার্শিপাড়া মহল্লার মৃত মোজাফ্ফর রহমানের ছেলে নির্মাণ শ্রমিক মো.আবু সুফিয়ান (২৬) এরে সাথে প্রায় চার বছর পূর্বে উপজেলার চকইলাম গ্রামের আকজারুল ইসলামের মেয়ে তাসলিমা খাতুনের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের কোন সন্তান হয়নি। আবু সুফিয়ান তার স্ত্রী, বিধবা মা আফরোজা বেগম তার তালাকপ্রাপ্ত বোন মোসলেমা খাতুন (১৯) কে নিয়ে দুই কক্ষ বিশিষ্ট ছোট একটি বাড়ীতে বসবাস করে। বিয়ের পরও আবু সুফিয়ান ও তার আপন ছোট বোন মোসলেমার সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। বিষয়টি নিয়ে সুফিয়ানের স্ত্রী তাসলিমা ও তার মা আফরোজা বেগম বেশ কয়েকবার তাদেরকে কড়াভাবে শাসন করে বলে গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে।

তারপরও সুযোগ পেলে তারা দুজন অবৈধ কাজে জড়িয়ে পড়তো। এব্যাপারে আবু সুফিয়ানে স্ত্রী তাসলিমা খাতুন বলেন,নিজ বোনের সাথে অবৈধ সম্পর্কের বিষয়ে প্রতিবাদ করলে প্রায় তাকে শারীরিক ও মানুষিকভাবে নির্যাতন করতো। এছাড়া যৌতুকের জন্য অনেক বার মারপিট করেছে।

তারপর অনেক কষ্ট ও ধর্য্য ধারণ করে স্বামীর ঘর সংসার করছি। গত শুক্রবার আমার শাশুড়ী মঙ্গোলিয়া গ্রামে আত্মীয়ের বাড়ীতে যায়। যাওয়ার আগের আমার ননদ মোসলেমকে প্রতিবেশি মামার বাড়ীতে রেখে যায় এবং শাশুড়ী না আসা পর্যন্ত তাকে বাড়ীতে আসতে নিষেধ করে। কিন্তু নিষেধ অমান্য করে শুক্রবার ভোর সকালে মোসলেমা বাড়ীতে এসে তার ভাইয়ের ঘরের পার্শে তার মায়ের ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় তার ভাই সুফিয়ান নিজ শয়নকক্ষে স্ত্রীর সঙ্গে শুয়ে ছিল। কৌশলে বিছানা থেকে ওঠে ঘরের দরজা বাহির থেকে বন্ধ করে তার বোনের ঘরে প্রবেশ করে। পার্শের ঘরে কুরুচিপূর্ণ শব্দ শুনতে পেয়ে তাসলিমা ঘর থেকে বাহিরে যেতে চাইলে দরজা বন্ধ পাওয়ায় তার সন্দেহে হয়। ঘরের সাব বাক্সের উপর দিয়ে পার্শে ঘরে উকি মেরে দেখেন ভাই বোন অবৈধ কাজে লিপ্ত হয়েছে। তাৎক্ষনিক স্বামীকে ঘর থেকে বের করে এনে তাসলিমা বলে তোমার সকল কুকর্ম আমি দেখে ফেলেছি। চতুর স্বামী সুফিয়ান স্ত্রী পা ধরে বলে তুমি কাউকে কিছু বলবে না। আমি তোমার সকল কথা শুনব।

কিন্তু স্বামীর এ অবৈধ সর্ম্পক মেনে নিতে না পেয়ে অসহায় গৃহবধূ প্রথমে প্রতিবেশি ধামইরহাট পৌরসভার কাউন্সিলর মো.আলতাফ হোসেনসহ গ্রামবাসীকে বিষয়টি জানান।

এদিক বাড়ীতে এ ধরণের ঘটনার খবর পেয়ে তার শাশুড়ী আফরোজা বেগম দ্রুত বাড়ীতে আসে। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্য ছেলের পরামর্শে গৃহবধূ তাসলিমাকে বাড়ী থেকে বের করে দেয় এবং সুফিয়ানকে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে। সে সঙ্গে গৃহবধূ তাসলিমা কে বাড়ী থেকে বের করে ঘরে তালা লাগিয়ে দেয়। বর্তমানে তাসলিমা প্রতিবেশির এক বাড়ীতে রয়েছে।

গ্রামবাসী জানায়, গৃহবধূ তাসলিমা নিঃসন্দেহে ভালো মেয়ে। তার আচার আচরণ ও স্বভাব চরিত্র ভালো। অনেক কষ্ট ও নির্যাতন সহ্য করে স্বামীর ঘর করছে। কিন্তু সুফিয়ানের বোন মোসলেমা লম্পট প্রকৃতির। ইতোমধ্যে চারবার তার বিয়ে হয়েছিল। গত প্রায় ছয় মাস আগে তাকে সর্বশেষ স্বামী তালাক দেয়। তবে গ্রামবাসীর কাছে লম্পট মোসলেমা স্বীকার করেন যে তার ভাই জোর পূর্বক তাকে ধর্ষণ করেছে।

দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে সুফিয়ান ভাইয়ের মধ্যে ছোট এবং মোসলেমা বড়দের মধ্যে সবার ছোট। এব্যাপারে মোসলেমার বাড়ীতে গিয়ে বিষয়টি কাছে জানতে চাইলে তার মা আফরোজা বেগম মেয়ের সাথে কথা বলতে বাধা প্রদান করেন এবং কৌশলে মেয়েকে বাড়ী থেকে পালিয়ে যেতে সহায়তা করেন। শাশুড়ী আফরোজা বেগম বিধবা হলেও সবকিছু গুছিয়ে বলতে পারেন।

তিনি জানান,তার মেয়ের সাথে পুত্রবধূ তাসলিমার ঝগড়া হয়েছিল। এ কারণে তাকে এক ভাইয়ের বাসায় রেখে গিয়েছিলম যাতে দুইজনের মাঝে নতুন করে কোন ঝামেলা না হয়। তার ছেলে ও মেয়ের মধ্যে এ ধরণের কোন অবৈধ সর্ম্পক নেই। তাসলিমা তার স্বামীর সাথে ঘর সংসার করবে না,তাই একটি অপবাদ দাঁড় করেছে। যা মোটেও সঠিক নয়।

এব্যাপার ধামইরহাট পৌরসভার কাউন্সিলর মো.আলতাফ হোসেন বলেন,বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের মাঝে সমঝোতার বৈঠক ডাকা হয়েছে। আশাকরি বিষয়টির সঠিক সমাধান করা যাবে।

ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আব্দুল মমিন বলেন,বিষয়টি আমার জানা নেই। এ ব্যাপারে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। তারপরও যদি ঘটনাটি সত্য হলে জাতির জন্য চরম লজ্জার খবর। কোন পক্ষকে ফাঁসাতে আবার কেউ এমন ঘটনা সাজিয়েছে কিনা সেটি খতিয়ে দেখা উচিৎ।

বিখ্যাত লেখক ও মণীষীদের নির্বাচিত ৩০০০ টি [বাংলাঃ ১২০০ English 1800 ] বানী বা উক্তি সমূহের বাংলা বই বা ই-বুক বা PDF [ কম্পিউটার + মোবাইল ভার্সন ]

বাণী চিরন্তণী all Quotes 1000 TOP POPULAR DOWNLOADS.pdf

পড়ুন ভাগ করে নেন শয্যাও,মা ও মেয়ের একজনই স্বামী! তাও আবার বাংলাদেশে

আরও পড়ুনমেয়েকে ধর্ষণের মামলায় পিতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

বন্ধুরা, এই পোস্টে আমরা আপনাকে  পোস্টটি সম্পর্কে বলেছি। আশা করি আপনি এই পোস্টটি পছন্দ করবেন।

আপনার এই পোস্টটি কেমন লেগেছে, মন্তব্য করে আমাদের জানান এবং এই পোস্টে কোনও ত্রুটি থাকলেও আমরা অবশ্যই এটি সংশোধন করে আপডেট করব।

 

Biography, Famous Quotes ও উক্তি সমূহ লেখাটি ভালো লেগে থাকলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করো। এই ধরনের লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজটি ফলো ।

 

ডেইলি নিউজ টাইমস বিডি ডটকম (Dailynewstimesbd.com)এর ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন করুন।

Subscribe to the Daily News Times bd.com YouTube channel and follow the Facebook page.

 

উক্ত আর্টিকেলের উক্তি ও বাণীসমূগ বিভিন্ন ব্লগ, উইকিপিডিয়া এবং .. রচিত গ্রন্থ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

আরও পড়তে পারেনভুলে গেছেন ফোনের পাসওয়ার্ড, পিন বা প্যাটার্ন? কীভাবে সেকেন্ডে করবেন আনলক, জানুন

আরও পড়ুনকালিদাস পণ্ডিতের ধাঁধাঁ – ১। পর্ব -২ moral stories Kalidas Pondit In Bangla কালিদাস

Read More:  কালিদাস গোপাল ভাঁড় খনার জনপ্রিয় বচন ধাঁধাঁ 1000 | শালি দুলাভাই এর রসের ধাঁধা | Bangla Dhadha সমগ্র কালেকশন

আরো জানুন >> মেয়েকে বিয়ের অপরাধে দুই বছরের জেল, মেয়ের বিচারও চলছে

তথ্যসূত্র: Wikipedia, Online

Sourc of : Wikipedia, Online Internet

 

 ছবিঃ ইন্টারনেট

দৃষ্টি আকর্ষণ এই সাইটে সাধারণত আমরা নিজস্ব কোনো খবর তৈরী করি না.. আমরা বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবরগুলো সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি.. তাই কোনো খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কতৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Reply

Translate »