এক বছরেই দখল ও দূষণে বেহাল যাত্রাবাড়ীর শেখ রাসেল পার্ক

যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তার উত্তর পাশে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের শেখ রাসেল পার্ক। এটির কাজ শেষ না হতেই উদ্বোধনের এক বছরের মধ্যেই দখল, দূষণ ও অযত্নে বেহাল হয়ে পড়েছে। পার্কের প্রবেশমুখে চায়ের দোকান ও সামনে কাঁচাবাজারের জন্য পার্কটি পুরোপুরি ঢাকা পড়েছে। অন্যদিকে পার্কের ভেতর মল-মূত্র ত্যাগের কারণে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে চারদিকে। দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের তদারকির অভাবে সৌন্দর্য হারাচ্ছে পার্কটি।

জানা যায়, রাজধানীর প্রবেশদ্বার যাত্রাবাড়ীতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) এ পার্কটির সংস্কারকাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে। পরে কাজ চলা অবস্থায়ই ২০২১ সালের ৯ জুন পার্কটির উদ্বোধন করেন ডিএসসিসি মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। ঐ সময় তিনি বলেন, এখানে মনোরম ও নান্দনিক একটি পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে, যাতে ঐ এলাকার মানুষজন একটি মুক্ত জায়গা পায়, আনন্দঘন সময় যেন তারা অতিবাহিত করতে পারে। দক্ষিণ সিটির মেয়র এমন ঘোষণা দিলেও এখন সেই পার্কের অবস্থা নাজুক।

নিউইয়র্ক টাইমসে প্রবন্ধ লিখে সেরা হলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী আরিয়া হক

সরেজমিন দেখা যায়, বিভিন্ন জেলার নামসহ একটি টাওয়ারে বসানো হয় বিশাল আকৃতির ঘড়ি। সেই টাওয়ারের লেখাও খসে পড়ছে। পাশেই বসার জায়গায় উঠে গেছে টাইলস। বিভিন্ন প্রজাতির গাছগাছালি থাকলেও পার্কের পরিবেশ এখন একেবারেই নোংরা। পার্কের ভেতর পাবলিক টয়লেট না থাকায় যত্রতত্র মল-মূত্র ত্যাগ করছে ভবঘুরেরা। এতে পার্কে ঘুরতে আসা লোকজন বেশিক্ষণ পার্কে অবস্থান করতে পারছে না। অন্যদিকে পার্কে ঢুকতে এমনভাবে দোকান ও কাঁচাবাজার বসানো হয়েছে, মূল সড়ক থেকে পার্কটি বোঝা যায় না। পার্কের সামনে ফলের দোকান, জুতার দোকান, চায়ের দোকান, কাঁচাবাজার বসানোর কারণে সৌন্দর্য হারাচ্ছে পার্কটি। ঘিঞ্জি একটি পরিবেশ তৈরি হয়েছে সেখানে।

এদিকে পার্কে রাতের বেলা অন্ধকার থাকায় বখাটেরা মাদক সেবনে লিপ্ত হয়। এ সময় গাজার উৎকট গন্ধ ছড়ায় বলে জানায় স্থানীয়রা। দিনের বেলায়ও ভবঘুরে ও কিশোর গ্যাংয়ের নিয়ন্ত্রণে থাকে পার্কটি। স্থানীয়রা বলেন, ‘এই এলাকায় খেলার মাঠ, পার্ক ও বিনোদনের কোনো ব্যবস্থা নেই। ভেবেছিলাম, এটি একটি চমৎকার জায়গা হবে কিন্তু বখাটে ও কিশোর গ্যাং এবং মাদকাসক্তদের নিরাপদ আড্ডাস্থলে পরিণত হয়েছে এটি। টয়লেট না থাকায় পার্কের যত্রতত্র মল-মূত্রের কারণে এর পরিবেশও দূষিত হচ্ছে।’ এলাকার আরেক বাসিন্দা বলেন, পার্কের তদরক করা দরকার। এভাবে তদারকি ছাড়া ছেড়ে দেওয়ার কারণে কয়েক দিনের মধ্যেই পার্কের অবস্থা বেহাল হয়ে গেছে। পার্কের সামনে এভাবে দখলের কারণে পার্কের পরিবেশ নষ্ট হয়েছে। পার্কটি এখন মাদকসেবীদের আড্ডাখানা হয়ে গেছে।

‘অমানুষের সঙ্গে থাকা যায় না’, চিরকুটে বাবাকে ‘ধর্ষক’ লিখে ১০ তলা থেকে ঝাঁপ তরুণীর

এ বিষয়ে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের যাত্রাবাড়ী এলাকার কাউন্সিলর আবুল কালাম বলেন, ‘পার্কটি এখনো ঠিকাদার আমাদের বুঝিয়ে দেয়নি। তাই আমরা এটির দেখভাল করতে পারছি না।’ এ বিষয়ে ডিএসসিসির অঞ্চল-৫-এর নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুল ইসলাম জয় বলেন, পার্কের ভেতর একটি কফি শপ হবে। সেটিই যারা ইজারা পাবে তারা পার্ক দেখাশোনা করবে। এখনো পার্কের কাজ পুরো শেষ না হওয়ায় সেটি ইজারা দেওয়া হয়নি। বিদ্যুৎ লাইনের কাজ চলছে বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Translate »