করোনায় উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য মার্কের ওষুধের অনুমোদন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য মার্কের অ্যান্টিভাইরাল ওষুধের অনুমোদন দিয়েছে। ফাইজার থেকে আরেকটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ অনুমোদনের একদিন পর এফডিএ মার্কের ওষুধটি অনুমোদন দেয়। খবর এনবিসি নিউজের।

ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, রিজব্যাক বায়োথেরাপিউটিকসের সাহায্যে তৈরি মার্কের মল্নুপিরাভির ওষুধ প্রাপ্তবয়স্ক এবং যারা গুরুতর রোগের ঝুঁকিতে রয়েছে তাদের জন্য অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, মুখে খাওয়া ওষুধের বড় সুবিধা হলো এগুলো বাড়িতে বসে নেওয়া যাবে এবং এর জন্য ইনজেকশনের প্রয়োজন হবে না। তাছাড়াও শীতে নতুন সংক্রমণ বাড়তে পারে যা এই ওষুষ গ্রহণের মাধ্যমে দেশের হাসপাতালের চাপ কমাতে সাহায্যে করবে।

ক্লিনিকাল ট্রায়ালে দেখা গেছে যে, মার্কের ওষুধ উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ করোনা রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুর ঝুঁকি ৩০ শতাংশ হ্রাস করেছে। ওষুধের সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলোর মধ্যে রয়েছে ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব এবং মাথা ঘোরা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মার্কের ওষুধের প্রায় ৩.১ মিলিয়ন কোর্স ২.২ বিলিয়ন ডলারে কিনতে সম্মত হয়েছে। হোয়াইট হাউসের করোনাভাইরাসের প্রতিক্রিয়া সমন্বয়কারী জেফ জায়েন্টস বুধবার এক ব্রিফিংয়ে বলেছেন যে, মুখে খাওয়ার ওষুধ বেশিরভাগই জানুয়ারির শেষ নাগাদ দেওয়া শুরু হবে।

মার্ক বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এটি কয়েক দিনের মধ্যে ‘শত হাজার’ কোর্স এবং আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১ মিলিয়ন কোর্স পাঠানোর জন্য প্রস্তুত। মার্কের বিজ্ঞানীরা আশা করছেন ওষুধটি ওমিক্রন ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে কাজ করবে।

এফডিএ জানিয়েছে, মলনুপিরাভির ১৮ বছরের কম বয়সী রোগীদের ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত নয় কারণ ওষুধটি হাড় এবং তরুণাস্থির বৃদ্ধিকে প্রভাবিত করতে পারে। এছাড়া গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

মার্কের ওষুধের সম্পূর্ণ কোর্স মোট ৪০টি বড়ি রয়েছে। চারটি ২০০-মিলিগ্রামের ওষুধ দিনে দুইবার পাঁচদিন খেতে হবে।

Leave a Reply

Translate »