কিভাবে গুগল ওয়েব স্টরি তৈরি করব ? Google Web Stories বলতে কী বোঝায়?

Wp Pluging
গুগোল কিছুদিন আগে তাদের একটি নতুন ফিচারে Google Web Stories যুক্ত করেছে । যারা গুগোল ওয়েব স্টরে ব্যবহার করে অর্গানিক ট্রাফিক পেতে চান তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি খুবই জরুরী।

আমরা আমাদের আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করব কিভাবে ওয়েব এ স্টোরিজবানাতে হয়? কিভাবে এর সাহায্যে লাখ লাখ অর্গানিক ট্রাফিক ওয়েবসাইটে আনা সম্ভব হয়?

Google Web Stories যদিও গুগল 2017 সালে প্রথম এই ফিচারটি লঞ্চ করে। কিন্তু সাথে সাথে এটি জনপ্রিয়তা পায় না ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে যায় Google Web Stories । আপনিও যদি এই জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে নিজের ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত পরিমাণে ট্রাফিক নিতে চান তাও আবার গুগল থেকে তবে আর্টিকেলটি পুরোপুরি করে রাখবেন। এটা করতে হলে আপনাকে কোন প্রকার অভিজ্ঞতা না থাকলেও চলবে। আর এখানে প্রতিযোগীর সংখ্যা খুব কম হয় দ্রুততার সাথেই আপনি টপ পর্যায়ে পৌঁছাতে পারবেন।

এখানে প্রতিযোগীর সংখ্যা খুবই কম তাই আপনি যদি এই কাজগুলো নিয়মিত করেন তবে আপনি খুব দ্রুততার সাথে Google Web Stories থেকে ট্রাফিক আনতে পারবেন। এই সকল কিছু করে আপনি ব্লগের সাহায্যে খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। চলুন আজকে আমরা আমাদের ব্লগ শুরু করি কিভাবে Google Web Stories তৈরি করব? গুগল ওয়েব স্টোরিজ বলতে কী বোঝায়? গুগোল এটি 2017 সালে চালু করলে তখন এটি জনপ্রিয়তা পায় না খুব একটা। তবে বর্তমানে এর জনপ্রিয়তা আগের তুলনায় দ্বিগুণ হারে বাড়তে শুরু করেছে এবং ভবিষ্যতেও আরো অনেকটাই পারবে বলে আশা করে গুগোল।

বলা হয় এক ধরনের ভিজুয়ালাইজেশন স্টোরিটেলিং ফরমেট। এখানে আপনি খুব সহজেই বিভিন্ন ইমেজ টেক্সট ব্যবহার করে অ্যানিমেশনের সাহায্যে স্টরি তৈরি করতে পারবেন। এসকল স্টরি গুলো দেখতে খুবই চমৎকার হয়ে থাকে। আপনি ইচ্ছা করলে গুগোল ট্রেন্ড ফলো করে দেশের ট্রেন্ডিং টপিকস নিয়ে এনিমেশন ইমেজ এবং ট্যাক্স এর সাহায্যে স্টরি তৈরি করতে পারেন। এগুলোর চাহিদা ভেদে বিভিন্ন লোকের কাছে দেখানো হয়ে থাকে।

আপনি যে টপিক নিয়ে তৈরি করেছেন ঠিক সেই টপিকের লোকের কাছেই স্টোরিজ গুলো পৌছে দেয়া হয়। তাই এগুলো কে ব্যবহার করতে হলে আপনাকে নিয়মিত স্টোরিজ তৈরি করে যেতে হবে।

Google Web Stories কিভাবে তৈরি করা হয়?

কোন পর্যায়ে এটিকে তৈরি করার জন্য আপনার কাছে কাজটিকে খুব কঠিন মনে হতে পারে। আপনি যেভাবে একটি পোস্ট তৈরী করেন এখানে সরাসরি ঠিক সেইভাবে লেখা লিখিবার ছবি এডজাস্ট করতে পারবেন না। কারণ এইধরনের কোনো রকম ফিচারস ওয়ার্ডপ্রেস অথবা ব্লগারের নেই। এর জন্য আপনাকে আলাদা প্লাগিন ব্যবহার করতে হবে যদি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে থাকেন। কিভাবে খুব সহজে গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পাওয়া যায়? প্রথমে প্লাগইনস সেক্টর এগিয়ে গুগোল ওয়েব স্টরে প্লাগিন ইন্সটল করে নিতে হবে। যেহেতু এই প্লাগইনটি গুগলের তৈরি তাই এটি নিয়ে কোনো রকম সমস্যা আপনাকে ফেস করতে হবে না।

এটি আপনি নির্দ্বিধায় ব্যবহার করতে পারেন। যেহেতু এই প্লাগইনটি গুগোল আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেরাই তৈরি করেছে তাই আপনি এটি ব্যবহার করে এসইও এর ক্ষেত্রেও বেশ ভালো সুবিধা পাবেন। তাছাড়া আপনার স্টরি গুলো খুব দ্রুততার সাথেই ডিসকভারি পেইজে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি রয়েছে। মেকার ওয়েব স্টোরিজ: এই প্লাগিনটি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও আপনাকে কোন প্রকার সমস্যা ফেস করতে হবে না।

কিন্তু এটি গুগলের তৈরি নয় এটি তৃতীয় পক্ষের কোন কোম্পানি তৈরি করেছে। সাহায্য আপনি খুব দ্রুত তার সাথে স্টোরিজ তৈরি করতে পারবেন। এই এই সকল প্লাগইনগুলো বিনামূল্যে পাওয়া যাবে। এটি দিয়ে আপনি খুব দ্রুততার সাথে ভালোমানের গল্প তৈরি করে এনিমেশন ছবির সাথে লেখা যুক্ত করে খুব ভালো মানের স্টরি তৈরি করতে পারবেন। আপনার অ্যানিমেশন ছবি এবং কনটেন্ট যত ভালো হবে ততো পরিমাণে ভিজিটর বেশি আসার সম্ভাবনা থাকবে।

গুগল ওয়েব স্টোরি কী ? কেন আপনি গুগল ওয়েব স্টোরি ব্যবহার করবেন?

জায়ান্ট কোম্পানি গুগল কিভাবে ইউজার এক্সপেরিয়েন্সকে আরো মসৃণতর করা যায় সেই উপলক্ষে সর্বদা সচেষ্ট। গুগল ওয়েব স্টোরি তেমনই এক প্রচেষ্টা বলা যেতে পারে।

সোশ্যাল সাইটে স্টোরি বলতে বোঝায় একগুচ্ছ ছবি, ভিডিও বা অডিও এর সমাহার যার মাধ্যমে একটা পূর্ণাঙ্গ তথ্যমূলক ঘটনা উপস্থাপন করা হয়। গুগল ওয়েব স্টোরি এখন খুবই জনপ্রিয় একটা ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে। সুইপ করার মধ্য দিয়ে স্লাইড পেরিয়ে পেরিয়ে স্টোরি উপভোগ করার মজাই আলাদা।

এগুলো সাধারণত ফুল-স্ক্রীন মোবাইল ফ্রেন্ডলি হয়ে থাকে। ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ার মতো একই স্টোরি ফর্মেট হলেও গুগল ওয়েব স্টোরি এদের থেকে মৌলিকতার দিক থেকে কিছুটা ভিন্ন। গুগল ওয়েব স্টোরি এমন এক কনটেন্ট যা পাবলিশার্স যেকোনো জায়গায় হোস্ট করতে পারবে। এটা সম্পূর্ণ তার নিজস্ব কনটেন্ট বলে বিবেচিত হয়।

ইন্সটাগ্রাম স্টোরি যেমন কেবলমাত্র ইন্সটাগ্রামে দেখা যায় , গুগল ওয়েব স্টোরি কিন্তু সেক্ষেত্রে ভিন্ন। গুগল ওয়েব স্টোরি নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট গুলোতেও উপভোগ করা যাবে। এইদিক থেকে গুগল ওয়েব স্টোরিতে পাবলিশার্স রা অনেক বেশি স্বাধীনতা ভোগ করে।

গুগল ওয়েব স্টোরি ব্যবহার করে ব্লগাররা তাদের ব্লগে ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারে। ওয়েব স্টোরি যে কেবলমাত্র ওয়েবসাইটেই খুঁজে পাওয়া যাবে তেমনটা নয়, গুগল সার্চ, গুগল ইমেজ ও গুগল ডিসকভারেও এই কনটেন্ট মিলবে। তাই বলা যেতে পারে গুগল ওয়েব স্টোরির ব্যাবহারিক ক্ষেত্র বিশাল।

নিউজ টাইমসের সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

গুগল ওয়েব স্টোরির উপকারিতা

খুব সহজেই গুগল ওয়েব স্টোরি তৈরি করা যায়। খুব কম সময়ের মধ্যে আপনি গুগল ওয়েব স্টোরি সিরিজ রেডি করে ফেলতে পারবেন । ওয়েব স্টোরিজ ওপেন ওয়েবেরই একটা অংশ। এগুলো আপনি বিভিন্ন জায়গায় শেয়ার করতে পারবেন। যেকোনো ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপ্লিকেশনে অনায়াসে embed করতে পারবেন।

গুগল ওয়েব স্টোরিতে আপনি external link ব্যবহার করতে পারবেন। অনান্য সোশ্যাল মিডিয়ার স্টোরিতে আপনি এই সুযোগটা পাবেন না। গুগল ওয়েব স্টোরি এই দিক থেকে আপনার মার্কেটিংয়ের সহায়ক হয়ে উঠছে।

গুগল ওয়েব স্টোরি যেহেতু একটা ওয়েব পেজের মতো কাজ করে তাই এটিকে আপনি কোনো অ্যানালিটিক্স প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত করতে পারবেন। অ্যানালিটিক্স প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে ওয়েব স্টোরিকে যুক্ত করলে আপনি এনগেজমেন্ট সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে পারবেন। এইভাবেই আপনার মার্কেটিং স্ট্রাটেজি উন্নত করতে পারবেন।

ইন্সটাগ্রামে বা ফেসবুকে শুধুমাত্র চব্বিশ ঘণ্টা বা একদিনের জন্য স্টোরি থাকে। অন্যদিকে গুগল ওয়েব স্টোরিতে সময়ের এইরকম কোনো লিমিটেশন নেই। আপনার ওয়েব পেজ যতদিন টিকে থাকবে গুগল ওয়েব স্টোরিও ততদিন থাকবে। এছাড়াও গুগল ওয়েব স্টোরির এক একটি কার্ড বা ডিসপ্লে কে ম্যানুয়ালী ট্যাপ করে next করা যায়। এতকিছু সুবিধা অন্য কোনো সোশ্যাল মিডিয়াতে পাবেন না।

গুগল ওয়েব স্টোরিতে AMP টেকনোলজি কাজে লাগে ফলে ওয়েব পেজ লোড হতে বেশি সময় লাগে না। কেবলমাত্র কোয়ালিটি কনটেন্ট থাকলেই হবে না, ওয়েব পেজও দ্রুত আপলোড হওয়া জরুরী। তা নাহলে আপনারই ব্যাবসার ক্ষতি। তাই গুগল ওয়েব স্টোরি আপনার সাইটের Ranking এর উন্নতিতে প্রভূত সাহায্য করে।

গুগল ওয়েব স্টোরি কেবলমাত্র SEO তেই সাহায্য করে এমনটা নয়, গুগল ওয়েব স্টোরির কনটেন্ট আপনি মানিটাইজড করতে পারবেন। অর্থাত গুগল ওয়েব স্টোরি আপনার রেভেনিউ বাড়াতে সহায়তা করবে।

গুগল অ্যাড বা কোনো অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক আপনি সংযুক্ত করতে পারবেন। ফলে আপনার উপার্জনের শ্রীবৃদ্ধি যে ঘটবে তা বলাই চলে।

কিভাবে ওয়েব স্টোরি তৈরি করবেন?

ওয়েব স্টোরি তৈরি করা এবং তা পাবলিশ করা খুব একটা কঠিন কাজ নয়। নীচে ধাপে ধাপে আলোচনা করা হল যে আপনি কোন পদ্ধতিতে ওয়েব স্টোরি ক্রিয়েট করবেন।

1) ভিজুয়াল এডিটর সিলেক্ট করুন

ভিজুয়াল এডিটর হল সেই প্রোগ্রাম যার মাধ্যমে আপনি টেক্সট, ইমেজ বা ভিডিও ব্যবহার করে ওয়েব স্টোরি তৈরি করতে পারবেন। এই কাজ করার জন্য আপনাকে ভিডিও এডিটিং এ এক্সপার্ট হতে হবে না। কারণ এই এডিটিং প্ল্যাটফর্মগুলির functionality খুবই সহজ ও সরল এবং এখানে অনেক build in template পেয়ে যাবেন। এই টেমপ্লেটগুলির দ্বারা খুবই ভালো ও আকর্ষণীয় ওয়েব স্টোরি তৈরি করে নিতে পারবেন। আপনার যদি ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট থাকে সেখানে আপনি ওয়েব স্টোরি নামে প্লাগিন পেয়ে যাবেন।

2) Draft

ওয়েব স্টোরিতে একটা সম্পূর্ণ ঘটনা বা গল্প প্রকাশ করতে হয়। তা নাহলে ভিউয়ার্সদের মনে খারাপ ইম্প্রেশন পড়বে। তাই ওয়েব স্টোরিতে স্টোরি পাবলিশ করতে হলে তার ড্রাফট বা খসড়া আগে রচনা করা জরুরী। আপনি গুগল ডকস ব্যবহার করে draft আগে রেডি করে নিতে পারেন।

3) ভিজুয়াল অ্যাসেট

ওয়েব স্টোরির একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল ইমেজ বা ভিডিও। আকর্ষণীয় text এর সাথে দুর্দান্ত ইমেজ ওয়েব স্টোরির এনগেজমেন্ট অনেকাংশে বাড়িয়ে দেবে। তাই ভেবেচিন্তে ঠিকঠাক ইমেজ বা ভিডিওর সিলেকশন করুন। তবে উল্লেখ্য এই যে কখনোই কপিরাইট যুক্ত ছবি বা ভিডিও ইউজ করবেন না। এর সাথেই বলে রাখা ভালো যে ইমেজ হোক বা ভিডিও সবসময় ভার্টিক্যাল ফর্মেটে আপলোড করতে হবে। এতে যেমন মোবাইলের সমগ্র স্ক্রিনটা কভার হবে তেমন আপলোডও হবে খুব দ্রুত।

4) Create Web Story

সমস্ত কিছু রেডি করে নেবার পর এডিটর প্ল্যাটফর্মে আপনাকে ওয়েব স্টোরি তৈরি করে নিতে হবে। আপনাকে ইমেজ বা ভিডিও স্লাইডগুলিতে ফরোয়ার্ড ও ব্যাকওয়ার্ড ট্যাপ অ্যাড করতে হবে। এছাড়াও আপনি কোনো সাইটের লিংক যুক্ত করতে পারবেন। অবশেষে আপনি যখন সুনিশ্চিত হবেন যে layout, text , media সবকিছু ঠিকঠাক আছে তখন আপনি পাবলিশ করতে আপনার কনটেন্ট সমগ্র জগতের সামনে।

70 ওয়ার্ডের টাইটেল এবং 200 শব্দেরএকটি টপিক।  5- 30 pages,The dimensions are 720 x 1280px image size 

Google web stories are basically the search engine version of social media stories. With their mobile-first dimensions and emphasis on video and visual content, web stories are a way of bringing the search experience into 2020.

Web stories take the format of up to 30 pages of content which you can click through like a social media story, and they appear in Google’s search results and Discover page.

They’re a form of AMP (Accelerated Mobile Pages), and according to Google, are for quick and easy consumption by busy people.

We don’t allow Web Stories that infringe anyone’s copyright. Web Stories are meant to reflect original works, so we don’t allow Web Stories that include someone else’s copyrighted work unless you have received permission. Google does not assume any obligation or responsibility with respect to obtaining rights for your Web Stories to appear across Google. If your Web Story infringes on someone else’s copyright, we may block it from appearing. For more information, review our copyright procedures.

We don’t allow Web Stories that are text heavy. Web Stories may not be eligible if the majority of pages have more than 180 characters of text. Usage of bite-sized video (less than 60 seconds per page) wherever possible is encouraged.

We don’t allow Web Stories that contain images and video assets that are stretched out or pixelated to the point that the viewer’s experience is negatively impacted.

We don’t allow Web Stories that are missing a binding theme or narrative structure from page to page.

We don’t allow Web Stories that are incomplete or that require users to click links to other websites or apps to get essential information.

We don’t allow Web Stories in which the sole goal is to advertise a service or a product, and especially if you may directly benefit from users consuming your Web Story. Affiliate marketing links are permissible as long as they are restricted to a minor part of the Web Story. Display ads may be placed following the Story Ad GuidelinesGood affiliate programs are supported based on spam policies for Google web search.

 Google Web Story dimensions … The dimensions are 720 x 1280px. But be careful – there’s a ‘safe zone’ inside this which indicates where the top

Makestories

Poster guidelines for Google Web Stories These guidelines apply to the story poster image(s): 1. The poster image should be representative of the entire AMP story. 2. The poster image should be visible to the user when the AMP story begins. To accommodate sizing, cropping or minor styling changes or preview purposes, the image file URL used in the metadata does not need to be an exact match to the URL on the first page of the story. 3. Provide a raster file, such as .jpg, .png, or .gif. Avoid vector files, such as .svg or .eps. The poster image should be in 3×4 aspect ratio for portrait, 4×3 for landscape, and 1×1 for square. 4. If the poster image is derived from a frame in a video, the thumbnail should be representative of the video. For example, the first frame in a video is often not representative. 5. Each poster image should meet the recommended minimum size: Portrait: 640px x 853px Landscape: 853px x 640px Square: 640px x 640px

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply Cancel reply