শহীদ থাঙ্গল জেনারল বিপ্লবী জীবনী

থাঙ্গল জেনারল জন্ম:- ১৮০৬ – মৃত্যু:- ১৩ আগস্ট ১৮৯১ থাঙ্গল জেনারল এর জন্ম হয়েছিল ১৮০৬ সালে ইম্ফলের মণিপুর থাঙ্গল আদিবাসীদের মাঝে। ইনি ছিলেন একজন আর্মি, কিন্তু দেশের জন্য লড়াই করে তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। থাঙ্গল জেনারল ইংরেজদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের ময়দানে অবতীর্ণ হয়েছিলেন। তার আসল নাম ছিল লুঙ্গথবু থাঙ্গল। তাঁর পিতার নাম ছিল কঙ্গাবম ও তাঁর মাতার নাম ছিল থোকচম। মণিপুরের কিছু নাগ উপজাতিদের দাবি যদিও তিনি মূলত হিন্দু ধর্মান্তরিত নাগা এবং মণিপুরী (মাইটাই) সম্প্রদায়ের অন্তর্ভূক্ত হয়েছিলেন, মণিপুরী বা মাইটেই পণ্ডিতরা দাবী করেন যে থাঙ্গাল একজন মাইটাই ছিলেন।

তাঁর জন্ম নিংথৌজা বংশে। থাঙ্গল জেনারল ছিলেন মণিপুরের আর্মি জেনারেল। তিনি ছোটবেলা থেকেই একটু শক্তিশালী ছিলেন ও বদ্ধিমানো ছিলেন। তার খুব শক ছিল শিকার করার। তবে রাজা চন্দ্রকীর্তি মহারাজের সময়কালে থাঙ্গল মেজর ছিলেন ও দরবারের সবচেয়ে শক্তিশালী সদস্য। তিনি মহারাজা চন্দ্রকীর্তি ও তাঁর পুত্রদের প্রতি অত্যন্ত অনুগত ছিলেন।

যাইহোক, ১৮৮৬ সালে চন্দ্রকীর্তি সিংহের মৃত্যুর পরে পরিস্থিতি বদলে যায়। ১৮৯০ সালের জায়গায় বিদ্রোহ ঘটে। যুবরাজ টিকেন্দ্রজিৎ এবং থাঙ্গল রাজত্বকালীন রাজা সুরচন্দ্রকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন।

থাঙ্গল জেনারল এর জিবন কালে ইংরেজদের হাত থেকে মণিপুরকে স্বাধীনতা দেবার বাহাদুরির সঙ্গে লড়াই করেছেন। ১৮৯১ সালে ইংরেজ সেনাবাহিনী থাঙ্গল গ্রেপ্তার করেন। তাকে ফাঁসির সাজা শোনানো হয়, ১৩ আগস্ট ১৮৯১ সালে থাঙ্গল জেনারলকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। একই দিনে বিকেল পাঁচটায় টিকেন্দ্রজিৎ সিং এবং থাঙ্গাল জেনারেলকে ইম্ফলের ফেইদা-পাং (পোলো গ্রাউন্ড) এ প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল ।

(তথ্যসূত্র সংগৃহীত) প্রকাশ রায়

Leave a Reply

Translate »