সালমান রুশদি (Salman Rushdie) একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ-আমেরিকান ঔপন্যাসিক।

স্যার আহমেদ সালমান রুশদি (English: Salman Rushdie) একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ-আমেরিকান ঔপন্যাসিক। তার লেখার বিশাল একটি অংশ জুড়েই থাকে ভারতীয় উপমহাদেশ। বলা হয়ে থাকে যে তিনি জাদু বাস্তবতার সাথে ঐতিহাসিক কল্পকাহিনী একত্রিত করে লিখেন

রুশদির দ্বিতীয় উপন্যাস, মিডনাইটস চিলড্রেন (১৯৮১), ১৯৮১ সালে বুকার পুরস্কার জিতেছিল এবং পুরস্কারের ২৫ তম এবং ৪০ তম বার্ষিকী উপলক্ষে দুটি অনুষ্ঠানে “সমস্ত বিজয়ীদের সেরা উপন্যাস” হিসাবে বিবেচিত হয়েছিল। তার চতুর্থ উপন্যাস, দ্য স্যাটানিক ভার্সেস (১৯৮৮) এর কারণে তিনি বিতর্কিত হয়ে উঠেন। কারণ মনে করার হয় তার উপন্যাসটি মত প্রকাশের স্বাধীনতা এবং রাজনৈতিক সহিংসতার ভূমিকা সম্পর্কে প্রতিবাদ ও বিতর্ক উস্কে দেয়। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি এই বই রচনার জন্য ১৯৮৯ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি তার বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের ফতোয়া জারি করেছিল। ব্রিটিশ সরকার রুশদিকে পুলিশ সুরক্ষায় রাখে এবং তাকে আত্মগোপনে বাধ্য করা হয়।

১৯৮৩ সালে, রুশদি রয়্যাল সোসাইটি অফ লিটারেচারের একজন সহকর্মী নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৯৯ সালে তিনি ফ্রান্সের Ordre des Arts et des Lettres-এর একজন কমান্ডার হিসেবে নিযুক্ত হন। সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য  সালমান রুশদি ২০০৭  সালে নাইট উপাধি লাভ করেন। ২০০৮ সালে, দ্য টাইমস ১৯৪৫ সাল থেকে ৫০ জন সর্বশ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ লেখকের তালিকায় তাকে ত্রয়োদশ স্থান দেয়। ২০০০ সাল থেকে রুশদি যুক্তরাষ্ট্রে  নিউ ইয়র্ক সিটির ইউনিয়ন স্কোয়ার এলাকায় বসবাস করছেন। ২০১৫ সালে নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির আর্থার এল. কার্টার জার্নালিজম ইনস্টিটিউটে তিনি বিশিষ্ট লেখক হিসেবে মনোনীত হন। এর আগে তিনি এমরি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। ২০০৮ সালের মে মাসে তাকে অ্যামেরিকান একাডেমি অফ আর্টস অ্যান্ড লেটারস এর একজন সম্মানসূচক বিদেশী সদস্য পদ প্রদান করা হয়।

২০১২ সালে, তিনি Joseph Anton: A Memoir, The Satanic Verses এর পরের ঘটনার প্রেক্ষিতে তার জীবনের একটি বিবরণ প্রকাশ করেন। ১২ আগস্ট ২০২২ সালে নিউইয়র্কের চৌতাকুয়াতে একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেওয়ার সময় অতর্কিত এক ব্যক্তি রুশদিকে ছুরিকাঘাত করে। এতে তিনি মারাত্মকভাবে আহত হন। ৭৫ বছর বয়সী রুশদিকে এরপর হেলিকপ্টারে করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়। ছুরির আঘাতে রুশদিরের এক চোখ নষ্ট হয় গেছে এবং তার লিভারও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায় লেবাননি বংশোদ্ভুত আমেরিকান নাগরিক হাদি মাতার (২৪ বছর) রুশদির গলা ও তলপেটে ছুরিকাঘাত করে।

আহমেদ সালমান রুশদি ব্রিটিশ রাজের সময় ১৯৪৭ সালের ১৯ জুন বোম্বেতে একটি ভারতীয় কাশ্মীরি মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা আনিস আহমেদ রুশদির পেশায় একজন আইনজীবী-ব্যবসায়ী এবং  শিক্ষক। জন্ম নিবন্ধনে বয়স কম দেখানোর কারণে রুশদির বাবাকে ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিসেস (ICS) থেকে বরখাস্ত করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Translate »