উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed পোশাক নিয়ে মন্তব্য করতেই রেগে গেলেন উরফি

উরফি জাবেদ ১৯৯৭ সালের ১৫ই অক্টোবরে ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের লখনউতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি লখনউয়ের নাম করা বিদ্যালয় সিটি মন্টেসরি স্কুল থেকে তার স্কুল জীবন সমাপ্ত করেন। তিনি অ্যামিটি বিশ্ববিদ্যালয়, লখনউয়ে থেকে গণযোগাযোগে স্নাতক করেন।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

২০১৬ সালে, উর্ফি জাভেদ সনি টিভির বড় ভাইয়া কি দুলহানিয়া-তে অবনী চরিত্রে অভিনয় করে নজর কাড়েন।[২] ২০১৬ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত, তিনি স্টার প্লাস চ্যানেলের চন্দ্র নন্দিনীতে ছায়ার চরিত্রে অভিনয় করেন। তারপর, তিনি স্টার প্লাসেরই মেরি দুর্গা সিরিজে আরতির চরিত্রে অভিনয় করেন।[৩]

তিনি, ২০১৮ সালে সাব টিভির সাত ফেরো কি হেরা ফেরিতে কামিনী জোশীর চরিত্রে, কালারস টিভির বেপান্না সিরিজে বেলা কপুররের চরিত্রে, স্টার ভারতের জিজি মা সিরিজে পিয়ালীর চরিত্রে এবং অ্যান্ডটিভিতে দয়ানে নন্দিনীর চরিত্রে অভিনয় করেন।[

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

তিনি, ২০২০ সালে ইয়ে রিস্তা কেয়া কেহলাতা হ্যায়-তে শিবানী ভাটিয়ার চরিত্রে অভিনয় করেন।[৬] তিনি, তারপর কসৌটি জিন্দেগি কে-তে তানিশা চক্রবর্তীর চরিত্রে অভিনয় করেন।

অর্ধশত তরুণীকে অপহরণ এবং ১৫০০ ছিনতাইয়ের ভিলেন গ্রেফতার

উরফি জাভেদ হলেন একজন ভারতীয় মডেল এবং অভিনেত্রী যিনি প্রধানত হিন্দি টেলিভিশন সিরিয়ালে তার কাজের জন্য পরিচিত।  বিগ বস OTT-তে প্রতিযোগী হিসেবে যোগদানের পর থেকেই তিনি নিয়মিত লাইমলাইটে রয়েছেন।  উরফি 15 অক্টোবর 1996 সালে লখনউয়ের গোমতী নগরে জন্মগ্রহণ করেন।  তিনি লখনউয়ের সিটি মন্টেসরি স্কুল থেকে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন। এরপর, তিনি স্নাতক করার জন্য লখনউয়ের অ্যামিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি অ্যামিটি ইউনিভার্সিটি থেকে গণযোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে স্নাতক করেছেন। উরফি যখন একাদশ শ্রেণীতে পড়তো তখন সে তার ছবিগুলো একটি প্রাপ্তবয়স্ক ওয়েবসাইটে আপলোড করেছিল।  এ কারণে তার বাবা প্রায় ২ বছর ধরে তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে।  তার পরিবারের সমর্থন ছিল না এমনকি তার পরিবার তাকে অভিযুক্ত করেছে।  আপনি জেনে অবাক হবেন উরফির আত্মীয়রাও তাকে পর্ণ স্টার বলা শুরু করে।  তারপরে সে তার দুই বোনকে নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে দিল্লি চলে যায় এবং প্রায় এক সপ্তাহ পার্কে সময় কাটায়।

অর্ধশত তরুণীকে অপহরণ এবং ১৫০০ ছিনতাইয়ের ভিলেন গ্রেফতার

এরপর তিনি একটি কল সেন্টারে চাকরি পান, তারপরে তার অবস্থার উন্নতি হয়।  মুম্বাইয়ে যাওয়ার আগে তিনি দিল্লিতে একজন ফ্যাশন ডিজাইনারের সহকারী হিসেবে কাজ করেছিলেন।  এরপর, তিনি মুম্বাইতে চলে আসেন যেখানে তিনি মডেলিং শুরু করেন এবং কিছু ফ্যাশন শোতে র‌্যাম্প ওয়াকও করেন।  তিনি অনেক সিরিয়ালে ভূমিকার জন্য অডিশন দিয়েছিলেন।  অবশেষে, 2015 সালে তিনি টিভি সিরিয়াল তেরি মেরি ফ্যামিলির মাধ্যমে প্রথমবারের মতো টিভি ইন্ডাস্ট্রিতে আত্মপ্রকাশ করার সুযোগ পান।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

2016 সালে, তিনি টিভি সিরিয়াল বদে ভাইয়া কি দুলহানিয়াতে অবনী পান্তের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন।  একই বছর, তিনি আরেকটি টিভি সিরিয়াল চন্দ্র নন্দিনীতে রাজকুমারী ছায়ার চরিত্রে হাজির হন।  এছাড়াও উরফি মেরি দূর্গা, সাত ফেরো কি হেরা ফেরি, বেপান্নাহ, জিজি মা, দায়ান, ইয়ে রিশতা কেয়া কেহলাতা হ্যায়, কসৌটি জিন্দেগি কে এবং আয়ে মেরে হামসাফারের মতো টিভি সিরিয়ালে অভিনয় করেছেন।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

2021 সালে, উরফি বিগ বস OTT-তে প্রতিযোগী হিসেবে অংশগ্রহণ করে প্রথমবারের মতো লাইমলাইটে আসেন।  এছাড়াও, উরফি অল্ট বালাজির ওয়েব সিরিজ পাঞ্চ বিট সিজন 2-এ অভিনয় হয়েছেন। একতা কাপুর প্রযোজিত এই ওয়েব সিরিজে উরফি মীরার চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

ক্রিকেটার আল আমিনের বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা

উরফি জাভেদের ব্যাক্তিগত তথ্য:-

আসল নাম: উরফি জাভেদ

জন্ম তারিখ: 15 অক্টোবর 1996

পেশা: মডেল ও অভিনেত্রী

বয়স: 25 বছর

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

জন্মস্থান: গোমতী নগর, লখনউ, উত্তর প্রদেশ, ভারত

হোমটাউন: লখনউ, উত্তর প্রদেশ, ভারত

বর্তমান ঠিকানা: মুম্বাই, মহারাষ্ট্র, ভারত

হাই স্কুল: সিটি মন্টেসরি স্কুল, লখনউ

শিক্ষাগত যোগ্যতা: গণযোগাযোগে স্নাতক

কলেজের নাম: অ্যামিটি ইউনিভার্সিটি, লখনউ

ভাষা: হিন্দি ও ইংরেজি

জাতীয়তা: ভারতীয়

ধর্ম: মুসলিম

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

আত্মপ্রকাশ: টিভি তে বাদে ভাইয়া কি দুলহানিয়া (2016), ওয়েব-সিরিজে পাঞ্চ বিট 2 (2021)

ব্যাংকে চাকরি পেলেন সন্তোষ, খুশি মা কমলি রবিদাস

বর্তমানে উরফি জাভেদের বয়স 25 বছর।  তার ফিটনেস রুটিনের কারণে সে সবচেয়ে উপযুক্ত ভারতীয় টেলিভিশন অভিনেত্রীদের মধ্যে একজন।  উরফি খোলা জায়গায় ব্যায়াম করতে পছন্দ করেন যেখানে তিনি জগিং এবং দৌড়ানোর মতো কার্ডিও ওয়ার্কআউট করেন।  তিনি প্রধানত তার কার্ডিও সেশন এবং শক্তি প্রশিক্ষণের জন্য বেশ কয়েকটি ওয়ার্কআউট অনুশীলন করেন।  এছাড়াও উরফি জাভেদ অন্যান্য অভিনেত্রীদের মতোই যোগব্যায়ামের মতো ক্রিয়াকলাপেও সক্রিয়।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি যখন জিমে যায় তখন সে প্রধানত শক্তি প্রশিক্ষণের দিকে মনোনিবেশ করে।  তিনি সময়ে সময়ে কিছু কিকবক্সিং সেশনেও অংশগ্রহণ করেন।  উরফি সময়ে সময়ে বিভিন্ন ফিটনেস বুট ক্যাম্পেও অংশগ্রহণ করে।  এগুলি বিশেষ প্রশিক্ষণ শিবির যা একটি নির্দিষ্ট এলাকায় ফোকাস করে এবং প্রশিক্ষণের রুটিন পরিচালনা করে।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

এ ছাড়া উরফি তার খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারেও খুব যত্ন নেয়।  নিজেকে ফিট রাখতে তিনি নিয়মিত এবং সুষম খাদ্যের নিয়ম অনুসরণ করেন।  সে বিশেষ ঝাঁকুনি নেয় যা তার বেশিরভাগ মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টকে ঢেকে রাখে। উরফি জাভেদের উচ্চতা 5 ফুট 5 ইঞ্চি। তার শরীরের ওজন 55 কেজি এবং উরফির শরীরের পরিমাপ 34-26-34।  তার চোখের রং কালো এবং তার চুলের রং কালো।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি মধ্যবিত্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পুরো পরিবার ইসলামে বিশ্বাসী।  উরফি জাভেদের মায়ের নাম জাকিয়া সুলতানা এবং বাবার নাম জানা যায়নি।  যাইহোক, উরফি এখন তার দুই ছোট বোন এবং মায়ের সাথে থাকেন।  তার বাবা তাকে বছরের পর বছর ধরে অত্যাচার করত, যার কারণে সে তার বোনদের নিয়ে পালিয়ে যায়। উরফির বাড়িতে তার মা ছাড়াও দুই ছোট বোনও থাকে, যাদের নাম আসফি জাভেদ এবং ডলি জাভেদ।  উরফির বৈবাহিক অবস্থা সম্পর্কে কথা বলতে গেলে, তিনি এখনও অবিবাহিত। এছাড়াও তিনি বর্তমানে কাউকে ডেটিংও করছেন না। উরফি বর্তমানে সিঙ্গেল রয়েছেন।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উরফি জাভেদ:-

উরফির অ্যাকাউন্ট সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে রয়েছে। মূলত হটনেসের কারণেই সোশ্যাল মিডিয়ায় আধিপত্য বিস্তার করেন তিনি। উরফি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয়।  উরফিকে প্রায়শই ইনস্টাগ্রামে তার ছবি আপলোড করে ভক্তদের হুঁশ উড়িয়ে দিতে দেখা যায়।  তার বেশিরভাগ ছবিই বিকিনিতে হটনেস পূর্ণ, যা তার ভক্তদের কাছে খুবই আনন্দদায়ক।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

সোশ্যাল মিডিয়ায় উরফি জাভেদের হাজার হাজার ভক্ত রয়েছে, যাদেরকে তার ছবিতে লাইক করতে এবং মন্তব্য করতে দেখা যায়।  ভক্তরা তার সৌন্দর্যে বিশ্বাসী, যারা তার প্রশংসা করতে ক্লান্ত হন না।  তিনি সোশ্যাল মিডিয়াতে খুব জনপ্রিয় এবং ভক্তরা তার স্টাইল সম্পর্কে পাগল।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

তিনি তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে কখনও কখনও তার গ্ল্যামারাস অবতার, কখনও কখনও ছোট ছোট ড্রেস পরে তার সাহসী অবতারে দেখা যায়।  তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে তার 3.3 মিলিয়নেরও বেশি ফলোয়ার রয়েছে। এছাড়াও, তিনি ফেসবুকেও বেশ সক্রিয়। সেখানে প্রায় 650000 বেশি লোক তাকে ফলো করে।

স্ত্রী ছেড়ে চলে গিয়েছেন, এক বছরের সন্তানকে কোলে নিয়েই রিকশা চালান রাজেশ

উরফি জাভেদের নেট ওয়ার্থ, আয় ও বেতন:-

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি জাভেদের মোট সম্পদ প্রায় ₹60 লক্ষ।  টেলিভিশন সিরিয়ালে অভিনয় হলো তার আয়ের প্রধান উৎস।  তিনি টিভি শোতে প্রতি পর্বে প্রায় ₹25 থেকে ₹35 হাজার আয় করেন।  এছাড়াও, তিনি তার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকে কিছু ব্র্যান্ডের প্রচারও করেন যার জন্য তিনি ভাল অর্থ নেন।

Urfi Javed: নিজে মুসলিম হলেও বিয়ে করবে না মুসলমান ছেলে, ব্রা-বিতর্কের পর বোমা ফাটাল উরফি!

 

বিগ বস ওটিটি-র ঘর থেকে বের হওয়ার পর থেকেই একাধিক বিতর্কে নাম জড়িয়েছে তাঁর!

‘বিগ বস OTT’-খ্যাত উরফি জাভেদ প্রায়শই তার ফ্যাশন সেন্সের জন্য শিরোনামে থাকেন। ভক্তরা তাXর ড্রেসিং স্টাইল পছন্দ করেন, আবার অনেক সময় তিনি পোশাকের কারণে ট্রোলারদেরর নিশানায় আসেন। সম্প্রতি ট্রোলিং থেকে শুরু করে বিয়ের জন্য কেমন ছেলে পছন্দ, তা নিয়ে সাফ কথা বলতে শোনা গেল উরফিকে। যেখানে তিনি বলেছিলেন, কোনও মুসলিম ছেলেকে বিয়ে করবেন না।

ইন্ডিয়া টুডে-কে উরফি জাভেদ জানান, ‘আমি একজন মুসলিম মেয়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সমস্ত মানুষ আমাকে নিয়ে নোংরা মন্তব্য করে, তাঁদের বেশিরভাগই মুসলিম। তাঁরা মনে করে আমি ইসলামের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছি। তারা আমাকে ঘৃণা করে কারণ মুসলিম পুরুষরা চায় মহিলারা একটি নির্দিষ্ট ভাবে আচরণ করবে।’

উরফি আরও বলেন, ‘আসলে তাঁরা এই সম্প্রদায়ের সব নারীকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় এবং এই কারণেই আমি ইসলামে বিশ্বাস করি না। আমাকে ট্রোল করার সবচেয়ে বড় কারণ হল ধর্ম অনুযায়ী তাঁরা আমার কাছে যেরকম আচরণ আশা করে আমি সেরকম আচরণ করি না।’

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

‘বিগ বস OTT’-খ্যাত উরফি জাভেদ প্রায়শই তার ফ্যাশন সেন্সের জন্য শিরোনামে থাকেন। ভক্তরা তাXর ড্রেসিং স্টাইল পছন্দ করেন, আবার অনেক সময় তিনি পোশাকের কারণে ট্রোলারদেরর নিশানায় আসেন। সম্প্রতি ট্রোলিং থেকে শুরু করে বিয়ের জন্য কেমন ছেলে পছন্দ, তা নিয়ে সাফ কথা বলতে শোনা গেল উরফিকে। যেখানে তিনি বলেছিলেন, কোনও মুসলিম ছেলেকে বিয়ে করবেন না।

ইন্ডিয়া টুডে-কে উরফি জাভেদ জানান, ‘আমি একজন মুসলিম মেয়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সমস্ত মানুষ আমাকে নিয়ে নোংরা মন্তব্য করে, তাঁদের বেশিরভাগই মুসলিম। তাঁরা মনে করে আমি ইসলামের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছি। তারা আমাকে ঘৃণা করে কারণ মুসলিম পুরুষরা চায় মহিলারা একটি নির্দিষ্ট ভাবে আচরণ করবে।’

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি আরও বলেন, ‘আসলে তাঁরা এই সম্প্রদায়ের সব নারীকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায় এবং এই কারণেই আমি ইসলামে বিশ্বাস করি না। আমাকে ট্রোল করার সবচেয়ে বড় কারণ হল ধর্ম অনুযায়ী তাঁরা আমার কাছে যেরকম আচরণ আশা করে আমি সেরকম আচরণ করি না।’|#+|

সঙ্গে উরফি এটাও  নিশ্চিত করে দেন, তিনি যেহেতু ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করেন না, তাই সেই সম্প্রদায়ের কোনও ছেলেক বিয়ে করবেন না! বরং, মন থেকে যাকে ভালোবাসবেন, সে যেই সম্প্রদায়ের হোক না কেন, তাকেই বিয়ে করবেন।

খানিকটা পূণম পাণ্ডের রাস্তায় হেঁটে উরফি প্রায়শই লোকসমাজে হাজির হন ব্রা-ছাড়া পোশাকে। আর তা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনাও কম হয় না! তবে ট্রোলারদের পাত্তা দিতে নারাজ উরফি, ঠিক যেমন তিনি পাত্তা দেন না কট্টরপন্থীদেরও!

লোকজন আমাদের 'খারাপ চোখে' দ্যাখে। তার মানে লোকজনের চোখই খারাপ,আমরা ঠিক আছি।

উরফি মাত্র পনের বছর বয়সে যৌনকর্মী !

উরফি জাভেদ তার উদ্ভট ফ্যাশনের কারণে প্রায় প্রতিদিনই শিরোনামে থাকেন। গত মাসে, একজন ফ্যাশন ডিজাইনার তার ফ্যাশনকে ব্যঙ্গ করে বলেছিলেন যে তিনি উরফির জন্য দুঃখিত I

তার ফ্যাশন নিয়ে পড়াশোনা করা উচিত। উরফি ওকে এক হাতে নিল। কিন্তু একসময় উরফির ছবি চলে যায় পর্ন সাইটে। এর জন্য দায়ী ছিল তার পরিবার।

উরফি জাবেদ জীবনী Urfi Javed

উরফি লখনউয়ের অত্যন্ত রক্ষণশীল মুসলিম পরিবারের মেয়ে। তখন তার বয়স পনেরো বছর। সেই সময় লখনউও বেশ রক্ষণশীল ছিল। জিন্স-টপ পরা মেয়েদেরও তারা পছন্দ করত না।

কিন্তু উরফি কোল্ড-শোল্ডার টপ পরতে চেয়েছিল। তবে বর্তমানে এই ধরনের টপকে কোল্ড-শোল্ডার বলা হলেও তখন এটি শোল্ডার ওপেন টপ নামে পরিচিত ছিল।

গোটা লখনউ খুঁজেও সেই টপ পাওয়া যায়নি। ফলে নিজের হাতে কাঁধ খোলা টপ বানিয়ে পরেছিলেন উর্ফি। এমনকি সেই ছবি পোস্ট করেছিলেন ফেসবুকে।

Leave a Reply

Translate »