এই নারীর ৩টি পা‚ ৪টি স্তন এবং ২ টি যৌনাঙ্গ | ব্লাঁশর জন্ম থেকেই ৩টি পা‚ ৪টি স্তন এবং ২ টি যৌনাঙ্গ ছিল

মানবদেহে বিকৃতি যে কত ভয়ঙ্কর হতে পারে তার উদাহরণ‚ ব্লাঁশ দুমাঁ | তিনি ছিলেন এক ফরাসি যৌনকর্মী | জন্ম থেকেই তাঁর দেহে তিনটি পা‚ চারটি স্তন এবং দুটি যৌনাঙ্গ | জন্মগত এই ত্রুটি তাঁকে বাধ্য করেছিল দেহ পসারিণী হতে | সেই উনিশ শতকে তিনি ছিলেন সমাজের মূলস্রোতে ব্রাত্য |

ব্লাঁশর জন্ম ১৮৬০-এ | বাবা ছিলেন ফরাসি | মা আফ্রিকান | এই নারীর কথা পাওয়া যায় Human Oddities: A Book of Nature’s Anomalies বইয়ে | ব্রাজিলের Bechlinger-এর কলমে | তিনি নিজে গিয়ে ব্লাঁশর সঙ্গে কথা বলে লিখেছিলেন তাঁর জীবনের নানা পর্ব |

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্লাঁশ টের পেলেন তাঁর লিবিডো তীব্র | এমনিতেই সার্কাস ছাড়া কাজ পাননি তিনি | এ বার সার্কাস ছেড়ে চলে গেলন সরাসরি দেহ ব্যবসায় | রক্ষা পেল সবদিক |

ব্লাঁশ যখন গর্ভস্থ অবস্থায় ছিলেন তখন তাঁর মায়ের এমন কোনও জটিলতা দেখা দেয়‚ যা তাঁর ভূমিষ্ঠ হওয়ার আগে ধরা পড়েনি | অন্তত তখনকার চিকিৎসা শাস্ত্রে | হয়তো যমজ সন্তান হওয়ার পরিবর্তে ভূমিষ্ঠ হয়েছিলেন একা ব্লাঁশ | কিন্তু তাঁর দেহে থেকে গেছিল বাড়তি অঙ্গ প্রত্যঙ্গগুলো |

আরও পড়ুন:  ছেলেদের ত্বক ফর্সা করার ৫টি সহজ উপায় || ছেলেদের জন্য সেরা ১০টি ফেস ওয়াশ ও তাদের দাম

মানুষের স্বাভাবিক যে দুটি পা থাকে‚ সে দুটি পা ব্লাঁশর ক্ষেত্রে ছিল দুর্বল এবং অপরিণত | এছাড়া আরও একটি অপরিণত পা যুক্ত ছিল তাঁর দেহেরCoccygeus অংশে | স্বাভাবিকের তুলনায় স্ফীত তাঁর পেলভিস | নারী দেহের স্বাভাবিক সুটি স্তন ছাড়াও ছিল আরও দুটি অপরিণত স্তন | পিউবিক অংশে | এছাড়াও দুটি ভ্যাজাইনা এবং দুটি Vulva |

একটিও কিন্তু অসাড় ছিল না | এত তীব্র ছিল তাঁর লিবিডো‚ তিনি নাকি দুটি ভ্যাজাইনা দিয়েই তৃপ্ত করতেন পুরুষদের | চিঠি লিখেছিলেন ফ্রান্সেস্কো লেন্তিনিকে | কারণ ফ্রান্সেস্কো পুরুষ হলেও ব্লাঁশর মতো একই পথের পথিক ছিলেন | তাঁর দেহেও ছিল তিনটি পা এবং দুটি পুরুষাঙ্গ |

আরও পড়ুন:  মুখের দাগ সহজে দূর করার সেরা কয়েকটি ঘরোয়া উপায় |

 

ফ্রান্সেস্কোর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক তৈরি করতে চেয়েছিলেন ব্লাঁশ | এটা শোনা কথা হলেও এর পিছনে পাওয়া যায়নি কোনও মান্যতা | তবে এ কথা বলাই যায় ব্লাঁশ জীবনকে অভিশাপ বলে ধরে নিয়ে নিজেকে হতাশায় ডুবিয়ে দেননি | বরং বিকৃতিকে সঙ্গী করেই নিজের মতো বেঁচেছিলেন | নিজের পথকে পঙ্কিল মনে হয়নি কখনও তাঁর | সময়ের থেকে এগিয়ে ছিলেন অনেকটাই |

 

Leave a Reply

Translate »