করোনা দেশের শিক্ষা-স্বাস্থ্যখাতের স্বরূপ উন্মোচন করেছে । অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন

করোনা মহামারি দেশের শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতের স্বরূপ উন্মোচন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ।

তিনি বলেন, করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী থাকা অবস্থায়ও আইসিইউ সংকটে মানুষ মারা গেছে। এছাড়া শিক্ষক নেটওয়ার্কের পক্ষ থেকে করোনাকালে শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে করণীয় সম্পর্কে যে পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল তা বিবেচনায় নেওয়া হয়নি।

শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত এক সর্বজন শুনানিতে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

এদিকে, পাঁচ প্রশ্ন সামনে রেখে এই সর্বজন শুনানির আয়োজন করা হয়। প্রশ্ন পাঁচটি হলো—

১. সবকিছু খোলা রেখে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার যৌক্তিকতা কী?
২.অনলাইন ক্লাস-পরীক্ষার নামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আদতে কী হচ্ছে?
৩. ইউনিসেফ-ইউনেস্কোর ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সবশেষে বন্ধ, সবার আগে খোলা’ নীতি বাস্তবায়নে অনীহা কেন?
৪. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বেতন ও সেশন ফি নেওয়ার হেতু কী?
৫.শতভাগ ভ্যাকসিন দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার রোডম্যাপ আদৌ সরকারের আছে কি?

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে অনুষ্ঠিত ‘সবকিছু খোলা রেখে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ কেন?’ শীর্ষক এই সর্বজন শুনানি থেকে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ দাবি করেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ঐক্যবদ্ধ কণ্ঠস্বর ভয় পায় বলে সরকার যতদিন পারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে চায়।

তিনি বলেন, যাদের সন্তান দেশে পড়াশোনা না করে বিদেশে পড়াশোনা করছে, তারাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখছে।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক তানজীম উদ্দীন খান, অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম, গণস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. লেলিন চৌধুরীসহ আরও অনেকে।

অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন

 

Leave a Reply

Translate »