খবরআন্তর্জাতিকভারতকে ঝটকা দিয়ে ভারতের শত্রুর সঙ্গে চুক্তি করল টেসলা, বড় সিদ্ধান্ত এলন মাস্কের

বছরখানেক আগে এলন মাস্কের কোম্পানি টেসলা ইন্ডিয়া মোটরস অ্যান্ড এনার্জি প্রাইভেট লিমিটেড হিসাবে নিবন্ধন করে ভারতে প্রবেশ করলেও এখনও এদেশে তার কোনো বৈদ্যুতিক যানবাহন চালু করতে পারেনি।

 

তবে, ভারতে না হলেও এবার আনুষ্ঠানিকভাবে তুরস্কের বাজারে প্রবেশ করেছে টেসলা। ইতিমধ্যেই টেসলা তুর্কি বাজারের জন্য জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কামাল গেকারকে নিযুক্ত করেছে। টেসলার ওয়েবসাইট অনুসারে জানা গিয়েছে যে, এটি আঙ্কারা, আন্টালিয়া, আইদিন, বর্সা, এডিরনে, ইস্তাম্বুল এবং কোনিয়াতে সুপারচার্জারের সাথে বাজারে প্রবেশ করছে।

 

 

 

 

 

পাশাপাশি, আরও জানা গিয়েছে যে, টেসলা বুলগেরিয়া, সার্বিয়া, রোমানিয়া এবং অন্যান্য দেশে বেশ কয়েকটি দ্রুত চার্জিং পয়েন্ট স্থাপন করছে। ২০২১ সালে তুরস্কে প্রায় ৪,০০০ টি বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রি হয়েছিল। যেখানে ২০২০ সালে এই সংখ্যা ছিল ১৬০০।

অর্থাৎ স্বাভাবিকভাবেই, সেদেশে হু হু করে চাহিদা বাড়ছে ইলেকট্রিক গাড়ির। পাশাপাশি, টেসলা আনুষ্ঠানিকভাবে তুরস্কে চালু হওয়ার সাথে সাথে এই ধরনের গাড়ির চাহিদা আরও বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

এদিকে, এলন মাস্ক চাইছেন যে, ভারত সরকার টেসলা গাড়ির আমদানি শুল্ক কমিয়ে আনুক, যাতে তিনি বিদেশে তৈরি করা গাড়ি ভারতের বাজারে সহজেই বিক্রি করতে পারেন। কিন্তু, সরকার এই ব্যাপারে মোটেও প্রস্তুত নয়। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বলা হয়েছে যে, এলন মাস্কের ক্রমাগত চাপে কোনো প্রভাব পড়বে না।

 

 

 

যদিও, টেসলার তরফে অনেক মাধ্যমে দাবি করা হয়েছে যে, ভারত সরকারের উচিত বৈদ্যুতিক গাড়ির আমদানি শুল্ক কমানো। তবে ভারতের শিল্প মন্ত্রক টেসলাকে দৃঢ়ভাবে জানিয়েছে যে, টেসলা ভারতে এসে তাদের গাড়ি উৎপাদন শুরু না করলে শুল্ক ছাড়ের কোনো প্রসঙ্গ তোলা যাবেনা।

 

পাশাপাশি, অটো মার্কেট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতের বাজারে বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রতিযোগিতা করা সহজ নয়। এখানে Tata এবং Mahindra-এর মতো দেশীয় কোম্পানিগুলির পাশাপাশি Maruti, Hyundai, MG, Mercedes, Audi-র মতো কোম্পানিগুলি ইতিমধ্যেই তাদের পণ্য নিয়ে বাজারে উপস্থিত রয়েছে৷ এমন পরিস্থিতিতে একটি বা দু’টি মডেলের ভিত্তিতে টেসলার জন্য ভারতীয় বাজার খুবই চ্যালেঞ্জিং।

অভাবে দিন পার করা প্রজ্ঞাতেজ চাকমা এখন ওয়াশিংটন ভার্সিটির শিক্ষক!

বলে দিই, তুরস্ক বা তুর্কি ভারতের শত্রু বলেই পরিচিত। কারণ একাধিক ইস্যুতে তুরস্ক পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়ে ভারতের বিরুদ্ধে মোর্চা খুলেছিল। সংখ্যালঘু নির্যাতন, কাশ্মীর ইস্যু এবং ৩৭ও ধারা অপসারণ ছিল এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ। আর এবার ভারতকে ঝটকা দিয়ে এলন মাস্ক তুরস্কের সঙ্গে মিত্রটেসলা, বড় সিদ্ধান্ত এলন মাস্কেরThuতা বাড়াল।

Leave a Reply

Translate »