ঘরে বসেই মিলবে জমির পর্চা ও ম্যাপ, আবেদন করবেন যেভাবে

 

ঘরে বসে জমির খতিয়ান (পর্চা) কিংবা ম্যাপ পাওয়া অনেক সহজ নিয়ম চালু করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়। খতিয়ান কিংবা ম্যাপ পেতে আবেদন করতে মোবাইল অ্যাপ কিংবা ওয়েব প্ল্যাটফর্মেও ঢুকতে হবে না। এ কাজের জন্য ডিজিটাল সার্ভিস গ্রহণে স্মার্টফোন থাকার বাধ্যবাধকতাও আর থাকছে না। যে কোনও ফোন থেকে শুধু ‘১৬১২২’ নম্বরে ফোন করলেই হবে।

 

শনিবার (৮ জানুয়ারি) ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

 

ভূমি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জমির খতিয়ান (পর্চা) কিংবা ম্যাপ পেতে ‘১৬১২২’ নম্বরে ফোন করলেই হবে। ফোনের অপরপ্রান্ত থেকে ভূমিসেবা হটলাইন অপারেটরই গ্রাহকের কাজ করে দেবে। ফোন করার ৪ মিনিটেই খতিয়ান কিংবা মৌজা ম্যাপের আবেদন করা যাবে, দেওয়া যাবে এসবের ফিও। একইভাবে ভূমি উন্নয়ন করও পরিশোধ করা যাবে।

ডিজিটাল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস যেমন নগদ, রকেট, বিকাশ, উপায় এবং যেকোনও ডেবিট কিংবা ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ফি জমা দেওয়া যাবে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

 

১৬১২২ নম্বরে ফোন করা ছাড়াও জমির মালিক নিজেই আবেদন করতে পারেন ভূমিসেবা ওয়েব(https://land.gov.bd) প্ল্যাটফর্মে গিয়ে মোবাইলের ভূমিসেবা অ্যাপ দিয়ে কিংবা ইউডিসি-এর সহায়তায়।

 

ফোন করে যেভাবে জমির খতিয়ান কিংবা জমির ম্যাপ যেভাবে পাবেন

 

১৬১২২ ফোন করে এনআইডিসহ জমির তথ্য প্রদান করার পর কল-সেন্টার আবেদনকারীর পক্ষে খতিয়ান কিংবা জমির ম্যাপের আবেদন দাখিল করবে। এরপর আবেদনকারী তার মোবাইলে একটি টোকেন পাবেন। টোকেন নম্বরটি দিয়ে মোবাইলের মাধ্যমে ফি প্রদান করলে তিনি মোবাইলে আবেদনের আইডি ও ডেলিভারির তারিখ পাবেন। নির্দিষ্ট তারিখে বাংলাদেশ ডাকবিভাগের প্রতিনিধি আবেদনকারীর ঠিকানায় খতিয়ান তথা পর্চা কিংবা জমির ম্যাপ পৌঁছে দেবে।

 

এছাড়া ভার্চুয়াল রেকর্ডরুম থেকে যে কোনও সময় যে কোনও স্থান থেকে যেকোনও নাগরিক খতিয়ান (পর্চা) দেখতে পারবেন। সার্টিফাইড কপি কাউন্টার থেকে ডেলিভারির জন্য কোর্ট ফি ৫০ টাকা। ডাকযোগে নিজ ঠিকানায় খতিয়ান ডেলিভারির জন্য অতিরিক্ত ৪০টাকা দিতে হবে।

 

 

Leave a Reply

Translate »