টানা ১০ বছর ট্রেনে করে নাচ শিখতে ঢাকা এসেছেন মম

দারুচিনি দ্বীপ’ সিনেমায় অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন জাকিয়া বারী মম। এ প্রজন্মের মেধাবী অভিনেত্রীদের তালিকা করা হলে মমর নাম আসবেই! অথচ মমর শিল্পীজীবনের শুরুটা হয়েছিল অন্য রকম। মাত্র তি-চার বছর বয়সে নাচ, গান, ছবি আঁকার ক্লাসে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। ছোটবেলাতেই নাচের জন্য পেয়েছেন জাতীয় শিশু পুরস্কার। বিজ্ঞাপন শুধু তা-ই নয়, ছোটবেলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মফস্বল শহরে বেড়ে ওঠা মম মাকে সঙ্গে নিয়ে টানা ১০ বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে ঢাকা এসে নাচ শিখেছিলেন। শিবলী মহম্মদ ও কবিরুল ইসলাম রতন ছিলেন মমর নৃত্যগুরু। মাছরাঙা টেলিভিশনের নিয়মিত আয়োজন ‘রাঙা সকাল’-এর ঈদ বিশেষ পর্বে অতিথি হয়ে এসে মম তার জীবনের নানা জানা-অজানা গল্পের ডালা মেলে ধরেন।

হাতিরঝিল ঘিরে ভয়-উদ্বেগ বাড়ছেই

তিনি বলেন, ‘সকালবেলা ট্রেনে চেপে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে রওনা করে ঢাকায় এসে নাচ শিখে আবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উদ্দেশে রওনা দিতাম। এ ক্ষেত্রে আমার মা আয়েশা আক্তারের অবদান ছিল সবচেয়ে বেশি। মা রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ছিলেন। তার চাকরি, তখনকার সমাজব্যবস্থা-সব কিছু সামলে আমাকে নিয়ে যে সংগ্রাম করেছিলেন, তারই পরিণতি হয়তো আমার শিল্পী হয়ে ওঠা। ’ বিটিভি’তে শিশুদের প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান ‘নতুন কুঁড়ি’তেও পুরস্কৃত হয়েছিলেন মম। গান গাওয়ার জন্য ১৯৯৫ সালে এসেছিল এ পুরস্কার। অথচ নাচ কিংবা গানে নয়, এখন অভিনয়েই নিয়মিত তিনি।

পদ্মা সেতু দিয়ে গাবতলীর বাস চলাচলে অপেক্ষা বাড়ল আরও

মমর হাতে থাকা নতুন দুটি সিনেমা মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক। এর একটি খিজির হায়াত খান পরিচালিত ‘ওরা ৭ জন’, অন্যটি অনন্য মামুন পরিচালিত ‘রেডিও’। সাম্প্রতিক সময়ে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ‘মহানগর’, ‘কন্ট্র্যাক্ট’, ‘রিফিউজী’ বা অতি সম্প্রতি ভিন্ন ধারার কাজ ‘কোহিনূর’-এ ময়লাওয়ালীর চরিত্রে অভিনয় করে ভীষণভাবে প্রশংসিত হয়েছেন মম। এই সাফল্যের জয়যাত্রা অক্ষুণ্ণ রাখতে চান মম নিজেও; ‘রাঙা সকাল’ অনুষ্ঠানে সে আশাবাদই তিনি ব্যক্ত করেছেন। মাছরাঙা টেলিভিশনে ‘রাঙা সকাল’র এই বিশেষ পর্বটি প্রচারিত হবে ঈদের তৃতীয় দিন সকাল ৭টায়।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply

Translate »