পেটে কার সন্তান, স্বামীর নাকি দেবরের, জানেনা ‘সুন্দরী বৌদি’

আমার নাম পূজা। সা’রাদিন একা একা থাকি আর এসব ভাবি। আমি আ’সলেই কার স’ন্তান পেটে নিয়ে চ’লাফেরা করছি।

দয়া করে আমার পরিচয় সকলের সামনে তুলে ধ’রবেন না। কারন, আমি আমার সংসারকে অনেক ভা’লোবাসি। আমার বি’য়ে হয়েছে আড়াই বছর আগে। তখন আমি মাত্র এস এস সি পাশ করি। শশুর বাড়ির লো’কজন খুব ভালো। তারা সকলেই আমাকে অনেক ভা’লোবাসে। আমার শশুর বা’ড়ির কারো ইচ্ছে নেই আমি আরও বেশী লে’খাপড়া করি। আমি সেটা বুঝতে পে’রেছিলাম। আমার স্বা’মী ছিল অ’শিক্ষিত।

আমি বেশিদুর লেখাপড়া করলে হয়তো তাকে ছাড়তে পারি এই ভ’য়ে আর একটি কারন হলো তারা কখনই আ’মাকে চাকুরী করতে দেবে না আর ক’লেজটিও ছিল আ’মার শশুর বাড়ি থেকে অনেক দুরে। যাই হোক মূ’ল কথায় আসা যাক। বিয়ের পর থেকেই শশুর বাড়ির সবাই আমাকে অনেক ভা’লোবাসে, আদর করে।

আরও পড়ুন : স্ত্রী’কে খুব সুখী রা’খুন এই ৯টি কৌ’শলে!

বর আছে তারা একজন আমার সমব’য়সী এবং অ’ন্যজন ১০ম শ্রেণীতে পড়ে। এক’জনের নাম সুমন আর অন্য জনের নাম সুজা। সুমন শহরে থেকে লে’খাপড়া করে আর সুজা বা’ড়িতেই থাকে। সুমন বাড়িতে আসলে একসাথে লুডু খেলা হয়। অনেক ম’জা হয়। এভাবে বছর খানেক কাটে। এদিকে, সুমন এইচ এসসি পরীক্ষা শেষ করে বা’ড়িতে এসেছে।

সবাই মিলে সব সময় হা’সাহাসিতেই কাটে। একদিন আমাদের এক দুর আ’ত্মীয়ের কেউ মা’”রা যায়। সেখানে সবাই চলে যায়। বাড়িতে শুধু আমি থাকি। এদিকে, সুমন তার এক বন্ধুর বাড়িতে গি’য়েছিল। সে কারনে সবাই যাওয়ার কিছু পরেই সু’মন বাসায় চলে আসে। আসার পর বাড়িতে কেউ নেই শুনে যেন তার ঈদ লাগে। তখন বুঝতে পা’রিনি বাসায় একা শুনে তার এতো কেন? রুমে গিয়ে লু’ডু খেলতে বসেছি দুজনে। আমার দেবর সুমনের সাথে আমার শা’’রী’রিক স’ম্পর্ক হয়ে গেল।

আমি আর তাকে বা’’ধা দি’ইনি। এরপর থেকে সে যখনই সুযোগ পেত তখনই এসব করত আমার সাথে। এভাবে চলে প্রায় দুই মাস। এরপর সুমনের রে’জাল্ট হয় এবং সে আবার শহরে চলে যায়। তারপর ২-৩মাস পর বুঝতে পারি যে আমি প্রে’গ’নে’ন্স হয়ে পড়িছি। এখন আমার ছয় মাস চলছে। সেই মূ”হুর্ত গুলো আমার এখন সারাক্ষন মনে পড়ে। আসলে আমার পেটের এই বাচ্চাটি কার? আমি মা’নসিকভাবে খুবই স’মস্যা’য় রয়েছি। এসব কথা কখনও কারো সাথে শেয়ার করার আস্থা আমি পাই না। কথাগুলো বলার আমার একটাই উ’দ্দেশ্য আমার মতো খেলার ছলে এসব যেন আর কেউ না করে। এই বি’ষয়ে কিছু পরামর্শ দিন।

ডেইলি নিউজ টাইমস বিডি ডটকম (Dailynewstimesbd.com)এর ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন করুন।

Leave a Reply Cancel reply