ফেসবুকে নবী মোহাম্মদকে ‘কটূক্তি’, অবসরপ্রাপ্ত হিন্দু শিক্ষকের ৫ বছরের কারাদণ্ড

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ইসলাম ধর্মের প্রবর্তক নবী মোহাম্মদকে নিয়ে কটূক্তি ও অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলা এক অবসরপ্রাপ্ত হিন্দু শিক্ষককে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১ লক্ষ টাকা জরিমানার শাস্তি দিয়েছে সাইবার ট্রাইবুনালের বিশেষ আদালত।

গত বৃহস্পতিবার (৩০জুন) বিকেলে সিলেট বিশেষ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জনাব আবুল কাশেম এ আদেশ দেন। সাজাপ্রাপ্ত হিন্দু শিক্ষকের নাম আশিষ বিজয় দেব। তিনি কমলগঞ্জ উপজেলার ছয়কুট গ্রামের বাসিন্দা। বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক জাভেদ জানান, ২০১৮ সালের ০৪ এপ্রিল আশিষ বিজয় দেব তার ফেসবুক আইডি থেকে মহানবী (সা) কে নিয়ে কটূক্তি ও অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেন।

চীনের এক দেশ দুই নীতি হংকংকে সুরক্ষা দিয়েছে: শি জিনপিং

পরে বিষয়টি কমলগঞ্জের তৌহিদী মুসলিম জনতার নজরে আসলে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সর্বমহলে আওয়াজ ওঠে এবং তৌহিদী মুসলিম জনতার পক্ষে মোঃ সায়েক আলী বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। দায়েরকৃত মামলার প্রেক্ষিতে আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। দীর্ঘ শুনানির পর আসামি আদালতে এ বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট বিপ্লব কান্তি দেব মাধব। উল্লেখ্য, বিলুপ্ত আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের (২০১৮) বেশকিছু ধারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলছে। বিগত বছরগুলোতে এই আইনের অপব্যবহারের কারণে অসংখ্য মানুষ হয়রানির শিকার আসছেন। বিশেষ করে অনলাইন এক্টিভিস্ট, ব্লগার, গণ মাধ্যম কর্মী এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হয়রানি করার হাতিয়ার হয়ে উঠেছে এই কালো আইন। এই আইনের মাধ্যমে কাউকে শাস্তি দেয়া মত প্রকাশের স্বাধীনতার বড় অন্তরায় ও সার্বজনীন মানবাধিকারের সুস্পষ্ট লংঘন হিসেবে আখ্যায়িত করে আসছে দেশী-বিদেশী মানবাধিকার সংস্থাগুলো।

SourceP: anweshan.news

Leave a Reply

Translate »