বীর বীরাঙ্গনা মালতী বাঈ লোধি

মালতী বাঈ লোধি ১৮৫৭ সালের যুদ্ধের মহান বীরাঙ্গনা ছিলেন। মালতী বাঈ লোধি ছিলেন বুন্দেলখণ্ডের ইতিহাসের মহান বীরাঙ্গনা ঝাঁসির রানী লক্ষী বাঈ এর ছোটবেলার খেলার সাথী। মালতী বাঈ, ঝাঁসির রানী লক্ষী বাঈ এর অঙ্গ রক্ষক ছিল।

       সন ১৮৫৭ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামে অনেকবার এই বীর যুবতী বীরাঙ্গনা, ব্রিটিশদের হাত থেকে ঝাঁসির রানী লক্ষী বাঈকে মৃত্যুর মুখ থেকে বাঁচিয়ে আনেন। মালতী বাঈ ছিলেন রানী লক্ষী বাঈ এর বড়োই স্নেহময়ী ও বিশ্বাসযোগ্য নারী।
                 জুন মাসের ১৮৫৭ সালের যুদ্ধে যখন রানী লক্ষী বাঈ আহত হন, তখন তার ঘোড়াটিও ট্রায়াম্ফ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল। দেহরক্ষী হিসাবে যখন মালতী বাঈ লোধি, রানী লক্ষী বাঈকে সেখান থেকে বেরিয়ে যেতে সাহায্য করেন এবং তখন মালতী বাঈ লোধির পিছনে একটি গুলি আঘাত করেছিল। সেখানেই মালতী বাঈ লোধি শহীদ হয়ে গেলেন। তিনিই ছিলেন ঝাঁসির প্রথম বীরাঙ্গনা শহীদ।
                 এই যুদ্ধে ঝাঁসীর দুর্গে রানিকে সাহায্য করতে গিয়ে শহীদ হন অমর যোদ্ধা সুখরাজ সিং লোধীও। ঝাঁসির রানী লক্ষী বাঈ এর আগে যোদ্ধ করতে করতে মারা যান। পরে ১৭ জুন যুদ্ধ ক্ষেত্রে শহীদ হন ঝাঁসির রানী লক্ষী বাঈ।
(তথ্যসূত্র সংগৃহীত)

Leave a Reply

Translate »