মানবদেহে শূকরের হার্ট বসানো নৈতিকভাবে কতটা সমর্থনযোগ্য?

 

গত সপ্তাহে বিশ্বের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের একজন রোগীর দেহে জেনেটিকালি রূপান্তরিত শূকরের হৃৎপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

দ্রুত বীর্যপাত সমস্যার সমাধান কী?

এই ধরনের অস্ত্রোপচারের জন্য ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড মেডিকেল সেন্টারকে বিশেষ অনুমতি দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসা তদারকি কর্তৃপক্ষ।

 

কিন্তু মানবদেহে শূকরের হার্ট প্রতিস্থাপন নৈতিকভাবে কতটা সমর্থনযোগ্য- এখন সেই প্রশ্ন তুলছেন অনেকে।

 

অনেকেই ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে শূকরের অঙ্গ ব্যবহারের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। আবার প্রাণী অধিকারকে সামনে রেখেও নৈতিকতার প্রশ্ন রাখছেন কেউ কেউ।

 

চিকিৎসকদের যে দলটি এই অস্ত্রোপচার করেছে, তারা বহু বছর ধরেই বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করছিল।

বুয়েটে চান্স পাওয়া অদম্য শোভা নেটিজেনদের প্রশংসায় ভাসছেন

তারা মনে করেন, এই অস্ত্রোপচার সফল হলে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের জীবন বদলে যাবে।

Leave a Reply

Translate »