রাত জেগে স্মার্টফোন ব্যবহারে কী কী ক্ষতি হচ্ছে জানেন?,রাত জেগে স্মার্টফোন ব্যবহার, অজান্তেই করছেন নিজের সর্বনাশ

অতিরিক্ত ক্লান্ত থাকার পরেও রাত জেগে স্মার্টফোন ব্যবহার করা যেকোনও বয়সি মানুষের যেন অভ্যাস এই যুগে। বিছানায় শুয়ে অতিরিক্ত স্মার্টফোন ব্যবহারে শুধু শরীর নয়, প্রতিদিনেরর জীবনযাত্রার উপরেও এর প্রভাব পড়ে।

দক্ষিণ ক্যারেলিনার ক্লেমসন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জুন পিচার জানান, দ্রুত মেজাজ বিগড়ে যাওয়া, প্রিয়জনদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করা, ছোটখাটো সমস্যাতেই প্রতিক্রিয়া দেখানো, এগুলো রাতে ঘুম না হওয়ার ফলেই হয়। এর ফলে ধীরে ধীরে আত্মবিশ্বাসও কমে যেতে পারে। প্রভাব পড়ে ত্বকের উপরেও। চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল, ফোলা ভাব এর কারণেই হয় বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এমনকি যৌন উত্তেজনাও কমে আসে এর ফলে।

চোখে প্রায়ই সমস্যা হচ্ছে? চোখ লাল, চোখ দিয়ে পানি পড়া সেইসঙ্গে চোখে ব্যথাও আছে? এমনকী অসুবিধা হচ্ছে দেখতেও! ভাবছেন দূষণ আর ঘুম ঠিকমতো না হওয়ার জন্য এরকমটা হচ্ছে? কিন্তু জানেন কি, দূষণ এবং চোখের রক্তচাপ হঠাৎ করে বেড়ে গিয়ে রক্তজালিকা ছিঁড়ে যেতে পারে! এমনকী চোখ শুকনো হয়ে যেতেও পারে। আর এর কারণ কিন্তু আপনার অতিরিক্ত মোবাইল এবং ল্যাপটপ ব্যবহার। এরকম বহু মানুষই এই সমস্যার ভুক্তভোগী। আপনি এমনই সমস্যায় ভুগে থাকলে এখনই সচেতন হোন।

চিকিৎসকেরা জানাচ্ছেন, রাতের বেলার শুয়ে স্মার্ট ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারই ডেকে আনছে বিপত্তি। কারণ ফোনের ওই নীল রং মস্তিষ্কের কাজে বাধা দেয়। ফলে ঘুম আসতে দেরি বয়। এছাড়াও চোখের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন ব্যহত হয়। ই-বুকে একলাইন পড়তে যে সময় লাগে, বই পড়তে তার চেয়ে অনেক কম সময় লাগে।

গবেষণা বলছে, অনিদ্রার কারণে শরীরে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা কমে আসে। ফলে দাম্পত্য কলহও বাঁধতে পারে এর ফলে। খিটখিটে মেজাজের ফলে বহুদিনের সম্পর্ক ভেঙেও যেতে পারে।

রাত জেগে মোবাইল ঘাঁটলে ক্ষুধার কারণে ভুলভাল খেয়ে ফেলা হয়। যেখান থেকে টাইপ ওয়ান ডায়াবেটিসের আশঙ্কা থাকে। সেইসঙ্গে শারীরিক নানা সমস্যা তো রয়েছেই।

চিকিৎসকেরা পরামর্শ দিচ্ছেন, ঘুমোতে যাওয়ার দু’ঘণ্টা আগে মোবাইল বা ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। এতে ঘুমের ব্যাঘাত হয়। যেখান থেকে শরীরের নানা সমস্যা আসে। এমনকী দুরারোগ্য ব্যধি পর্যন্ত হতে পারে।

Read More: হেঁচকিতে অস্বস্তি? জেনে নিন সমাধান,ঘরোয়া পদ্ধতি হেঁচকি কমানোর উপায়

আসুন জেনে নিই রাত জেগে স্মার্টফোন ব্যবহারের শারীরিক ক্ষতি-

১. প্রতি রাতে  মানুষের ৭-৮ ঘন্টার পর্যাপ্ত ঘুমের প্রয়োজন। স্মার্টফোনের নীল আলো শরীরে মেলাটোনিন হরমোন উৎপাদনে বিরূপ প্রভাব ফেলে।

২. রাতে ঘুমানোর আগে যারা স্মার্টফোন নিয়ে ব্যস্ত থাকেন, তাদের ঘুম কমে যেতে পারে। এতে মস্তিষ্ক ও মনের ক্ষতি হতে পারে।

৩. রাতে ঘরের আলো নেভানোর পর স্মার্টফোনের নীল আলোতে সোশ্যাল মিডিয়ায় যুক্ত হয়ে পড়েন অনেকে। এতে মোবাইল ফোনের ক্ষতিকর নীল আলো সরাসরি চোখে আঘাত করে। ফলে চোখের কোষের ক্ষতি হয় ও চোখে ব্যথা অনুভব হয়।

৪. আমেরিকান ম্যাকিউলার ডিজেনারেশন অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, মোবাইল ফোনের নীল আলো রেটিনার স্থায়ী ক্ষতি করে অন্ধত্বের দিকে ঠেলে দিতে পারে।

৫. রাত জেগে স্মার্ট ফোন ব্যবহার করলে ঘুম থেকে বঞ্চিত হবেন। ফলে মানসিক স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যেতে পারে।এছাড়া ঘুমের অভাবে চিন্তা শক্তি ও শারীরিক শক্তিও কমে যেতে পারে।

৬. ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, মোবাইল ফোন ইলেকট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন ছড়ায়, যা কয়েক ধরনের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে।

সূত্র: বোল্ডস্কাই

ডেইলি নিউজ টাইমস বিডি ডটকম (Dailynewstimesbd.com)এর ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন করুন

মোবাইল ব্যবহারে সতর্কতা, মোবাইল ফোনের ব্যবহার, শিক্ষার্থীদের বিপথগামী করছে, চোখ থেকে কত দূরে রেখে মোবাইল ব্যবহার করা উচিত

Leave a Reply

Translate »