লোপা রহমান এর কবিতা সমূহ ফেসবুক থেকে সংগৃহীত Lopa Rahman

শোনো শোনো মানুষ জন

শোনো দিয়া মন,
মেয়ে মানুষের চরিত্রের কথা
করিবো বর্নন।
বোরখা পরুক কিংবা স্কার্টই পরুক
কোনো পরিবর্তন নাই,
রাত দিন ২৪ ঘন্টা
ঢং ঢাং করা চাই!
আজকাল তারা অফিস করে
হাজার টাকা ইনকাম,
রেষ্টুরেন্টে গিয়ে তবু পুরুষটাকেই
দিতে হয় দাম!
সব নারী চায় তার সঙ্গী পুরুষ
তার কথামতো চলে,
সেই একি কাজ ভাইয়ে করলে
তারে বউয়ের গোলাম বলে!
নতুন নতুন ফ্যাশন কইরা তারা
রাস্তায় নামে ভাই,
পোলাপান একটু তাকাইলেই
চেইতা কয়
“ঘরে কি তোর মা বোন নাই”?!

মেয়েদের রাগ উঠলে পরে
পুরুষের থাকে লাঠি ঝাটার ভয়,
কিন্তু সেই মেয়েদেরই আদর করে
টোকা দিলেও নারী নির্যাতন হয়!
নারী যখন স্ত্রী থাকে তখন
আলাদা সুখের সংসার চায়,
সেই একি নারী মা হইলে পরে
নিজের ছেলেকে আচঁলে
বাইন্ধা সুখ পায়!
আমি নিজে নারী হয়েও
পুরুষদের জন্য কবিতা লিখলাম,
কারন ওরা খালি লিখতে পারে প্রেমের কথা,
ঝরায়ে শরীরের দুর্গন্ধ ভরা ঘাম!🤪
4.12.2016
আমার নাম মেয়েমানুষ,
আমার নাই কোনো হুশ;
আমারে বেচিয়া আবার খরিদ করে
সুশীল সমাজেরই পুরুষ মানুষ!
আর আমি থাকি বেহুশ!
পুরুষেরই মনোরঞ্জনে আমি
নিজেকে অনাবৃত করে রাখি,
তাদের দ্বারাই লাঞ্ছনা তবু
নিজের গায়েতেই মাখি!
যুগের পর যুগ আমি দেই শুধু
নিজেকেই নিজে ফাঁকি!
তোমাদের সেবায় নিয়োজিত থেকে
যখন উনুনে হাড়ি চাপাই,
মূর্খ আমি এই নাম বিনা
আর কিছু না পাই!
তবু আমি সংসারের সুখ ছাড়া
আর কিছু না চাই।
এ আমিই যখন আবার অফিসে যাই
করিতে অর্থ উপার্জন,
তোমরাই বলো “বেহায়া মেয়েছেলে
সংসারে নাই তার মন”!
নারী আমি কবে মানুষ হইবো
বলিতে কি পারো তোমরা?
যুগে যুগে আপন জননীরেই
শেকল পরিয়ে বেধে রেখেছ যারা!
LOPA RAHMAN
3.12.2016
সুন্দরী বলেন আর বান্দরনী বলেন নারীরাও হাগে;
তবে তাদেরকেই কেনো সুস্বাদু খাবার হিসেবে ঢেকে রাখতে হবে তা মনে প্রশ্ন জাগে🤔
কবিরা যদি কখনো REALISTIC হতো, তাহলে মনে হয় হরিন চোখ কিংবা কমলার কোয়ার মতো ঠোট না দেখে কিছু টা এমন দেখতে পেতো —-
ওগো মোর তিন নাম্বার প্রিয়তমা,
তোর পেটের চর্বি কিছুটা কমা।
তোর মুখটি তে আমি চুইংগাম ভরিতে চাই,
কেননা তুই বড় হা করিলে দুর্গন্ধ কিছুটা পাই!
শেষ করে আসিস যখন দৈনন্দিন সব কাজের চাপ,
অবাক নয়নে চাইয়া দেখি তোর বগলে কালা দাগের ছাপ!
কখনো যদি সকাল বেলা ভালো করে মুখ না ধুয়ে আসিস;
ক্যাতর ভরা তোর চোখটি দেখে এই মনে বাজে না কোনো শিস!
কখনো যদি সর্দি কাশি তে গড়িয়ে পরে অঝোর ধারায় পানি,
তোর নাকের ফুটার আঠালো পশম দেখে মনে হয় চাকরানী!
টয়লেটে গিয়ে তুই যখন বড় কাজ শেষ করে আসিস,
সেই টয়লেটে সাথে সাথে যাওয়ার সাহস হয়না তাই আটকে রাখি হিষ!
LOPA RAHMAN
3.12.2016
নতুন নতুন বিশ্বের মানুষগুলো সভ্য হতে শিখেছে,
ঐ পাড়ের ছেলেমেয়েগুলো একসাথে নাইতে নেমেছে।
কে দেখেছে কে দেখেছে হেফাজতের শফী দেখেছে;
তার জিবে তেতুল ছিল তা কামড় মেরেছে!
সাথে ছিল জীর্ন কাঠি তা গোসল করা দেখে খাড়া হয়েছে!
মোল্লাদের হাতে কলম ছিল তা ঢুকিয়ে দিয়েছে!
যে কলমের কাজ শুধুই লিখা তা কেন সেঁধিয়ে দিল তারা?
সারা অঙ্গে কেবল যৌনতার উত্তাপ নিয়ে বিভোর থাকেন যারা!
নারী ধর্ষণের জন্য পোষাককেই দায়ী করে তারা করেন শুরু আর আমাদের হয় সাড়া!
তারাই দেখি অনুভূতিতে আঘাত পেলেই জায়েয করে ঘাড়ে কোপ মারা!
তাদের কাজই হলো সাধারন মানুষকে বেকুব বানাতে ধর্মের কলকাঠি নাড়া!
পুরো বিশ্ব মানবতার ডাকে এক হয়ে জেগেছে আজ,
মানুষের মাঝে একতা বিনষ্ট করে এই ধর্মবাজ।
তাদের আল্লা ঠাডা ফালায় আর গডের পোলা যিশু ফালায় বজ্রপাত!
সেই বিশৃঙ্খলায় পরে সাধারন মানুষ ভয়ে ভয়ে চলেন দিনরাত।
আমি লোপা সেই ভয় তাড়াতে কবিতা লিখি অথচ বিটিভিতে চলে হামদ নাত!
সেই হামদ নাতের দোয়া পড়ে জঙ্গিরা শহীদ হয়েছে;
আমার এই কবিতা পড়েই মুমিন বলে “উফ! বড্ড লেগেছে🤪
7.10.19
সোনার বাংলার সোনার মানুষগুলো আজ শুধু কয়লা হয়ে বেঁচে রই,
হানাদার বাহিনী থেকে স্বাধীনতার বিজয় ছিনিয়ে আনা সেই মুক্তিসেনারা আজ কই!
যেই স্বপ্ন অঙ্গে মেখে ত্রিশ লক্ষ বাঙ্গালী হাসি মুখে প্রান দিলো;
স্বাধীন দেশের স্বৈরাচার সরকার আজ তার ভোটের অধিকারটাই কেড়ে নিলো!
স্বাধীনতার পর থেকে দেখছি শুধু গুটি কয়েক লোকের ক্ষমতার হাত বদলের খেলা,
জনগনের টাকা বেহায়ার মতো নিজ পকেটে ভরতেই কেটে যায় তাদের বেলা!
ক্ষমতায় থাকা ভন্ডগুলো সব দেশের অবনতির জন্য বিরোধী দলের ঘাড়ে চাপে সব দোষ,
বিরোধীগুলোও দেখি নির্লজ্জ্যের মতো গলা ফাটিয়ে বৈশাখ মাসকে বানায় পৌষ!
সেই বিপাকে বেকারত্ব আর অসফলতার ছটফটানিতে মানুষগুলো হয়ে পরে ধৈর্যহীন,
তারই রেশ ধরে তসলিমার মতো অসহায় মায়েরা গনপিটুনিতে রাস্তায় পরে রয় প্রাণহীন!
বাংলার ঘরে বাইরে আজ মসজিদে মাদ্রাসায় চলে ধর্ষনেরই খেলা,
নারীর পোশাককেই একমাত্র এর কারন হিসেবে দেখায় কিছু ধর্মবাজ চেলা!
ছোট ছোট ধর্ষনপ্রাপ্ত শিশুদের নিরাপত্তায় তবে কোন পোষাক করাবে পরিধান?
বস্তাবন্দী করে তাদের ঢেকেঢুকে রাখলে কি পাবো মোরা এ থেকে পরিত্রান?!
আজ যখন দেখি প্রিয়া সাহার মতো সংখ্যালঘুরা বিদেশের মাটিতে নিজ নিরাপত্তার ভিক্ষা চায়,
দেশী মানুষরাই উল্টো তাদের নির্মূলে ‘দেশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে’ বলে ধ্বংস নিধন চালায়!
দেশের সুনাম বাড়াতে আজ তাই মানুষের বদলে মশারা এসেছে চলি,
অসুস্হ পরিবেশে স্তুপকৃত ময়লায় ডেঙ্গুর জীবানুতে ভরে যায় অলি গলি!
তবুও আমি লোপা হতচ্ছাড়া মশার মতো ক্ষমতালোভী মানুষগুলোকেও নিধন করিতে বলি।
১৭ কোটি বাঙ্গালী আরো একবার হাতে হাত ধরে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে খেলবো বিজয়ের হোলি।🤗
Lopa Rahman
8.8.2019
বড় হও আরো বড় হও তুমি বাবা,
কিন্তু দেশের কথা ঠিক হবেনা ভাবা!
মুখস্থ বিদ্যাকে সম্বল করে জিপিএ ৫ তুমি পাও,
জাতীয় সঙ্গীতকে নজরুল গীতি বানিয়ে তুমি অনায়াসেই গান গাও!
নিউটনের সুত্র কিংবা আইনস্টাইন কি জিনিস ভাবতেই তোমার লাগে যত ভয়;
ফেইস বুকে কিংবা ইউটিউবে গান শুনে আরাম কিছুটা হয়।
দেশের প্রেসিডেন্টের নাম জিজ্ঞাস করিলে তুমি শূন্য দৃষ্টিতে চেয়ে থাকো,
কোথাকার কোন সানি লিওন কে ভেবে মনে লাল নীল ছবি আকোঁ!
বিজয় দিবস আর স্বাধীনতা দিবসের জগাখিচুড়ি বানিয়ে দিব্যি দাত কেলাও;
মাতৃভাষাকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে তুমি হিন্দী সুরে গাও!
আমি লোপা সুদূর লন্ডন বসিয়া হুদাই দেখাই দেশপ্রেম;
তুমি দেশের মাটিতে দেশপ্রেমের গুল্লি মারিয়া মোবাইলে খেলিতেছো গেইম!😅
Lopa Rahman
03.12.2016
এমন এক দেশের গল্প বলব আজ যেখানে সব থাকে আজব প্রাণী,
নিজ দেশের সংবিধান না মেনে সবাই কেবল শোনায় ধর্মের বাণী!
সেখানে ভালোবাসার মানুষকে খোলা আকাশের নিচে চুমু খেলে নাই তোমার মাফ,
তবে পুরুষ হয়ে জন্ম হলে মনের হরষে যেথা সেথা করিতে পারিবে প্রস্রাব!
সেথা নারী-পুরুষের ভালোবাসাবাসিতে সবার আপত্তি যত;
অথচ সেই ভালোবাসার ফসল জনসংখ্যা কেবল বাড়ছে শতশত!
মনে তাই প্রশ্ন জাগে সেই জনসংখ্যা গুলো কি তবে কেবল যৌনতারই ছাপ?
নারী-পুরুষের ভালোবাসাবাসিই যেখানে গণ্য হয় সবচেয়ে বড় পাপ!
কোরআন কোরআন বলে চিৎকার করে তারা বলে কুরআনেই নাকি আছে সকল সুখ,
অথচ সেই কোরআনের আইন অমান্য করে নারী নেত্রীর আঁচলে ঢাকে নিজের মুখ!
মুক্তমনারা নাকি তাদের অনুভূতিতে আঘাত করে এই বলে চিল্লায়,
কিন্তু মোল্লারা যখন বিধর্মীদের অনায়াসেই গালি দেয় তখন দাঁত কেলায়!
মায়ের পায়ের নিচে জান্নাত দিয়ে তারা পরকালের সুখ চায়,
অথচ সূরা নিসার ৩৪ আয়াতের বরাত দিয়ে হুদাই বউ পেটায়!
সেই আজব দেশের নামটি কি ভাই তোমরা কি কেউ জানো?
জেনে থাকলে নিজ বিবেকরে শুধাও তোমরা কেমনে এসব মানো?!
আমি বাপু সেই দেশেরই মানুষ তাই মনে মনে হাসি,
ওদের বিবেককে নাড়া দিতে লাখো মানুষের গালি খেয়েও দু’চারটে কথা বলি;
কারণ দেশটাকে যে বড্ড ভালোবাসি!
Lopa Rahman
1.6.2020
মুসলিম দেশের অলিতে গলিতে হালাল ক্যাসিনো থাকে;
সারা রাত জুয়া খেলে তারা সুবেহ সাদিকে আল্লার নামে ডাকে!
পাপ মোচনে জুয়ার ব্যাবসার অতিরিক্ত টাকায় তারা করতে যায় হজ্জ,
মক্কার মাটিতে পাপ ধুয়ে এসে নতুন করে চলে নারী আর মদের নেশার ভুরিভোজ!
তারাই দেখি জুম্মাবারে সবার আগে মসজিদে ছুটে যায়;
দিনরাত বউ পিটিয়ে ‘মা’ নামের নারীটির পায়েই জান্নাত খুঁজে পায়!
এরাই দেখি বাংলা ভুলে গিয়ে ‘মাশাল্লাহ সুবানাল্লা’ বলে আরবীতে হাঁকে;
ছাদে-উকুন কিংবা সাদিকুন শব্দের মানে জিগাইলে বোকার মতো চেয়ে থাকে!
এরাই আবার রাস্তার কোনো নর্দমার কাদা লেগে থাকা গরীবকে দেখে ‘ছোটোলোক’ বলে অনাবিল আনন্দ পান,
মসজিদ মাদ্রাসায় যাকাতের টাকাগুলো সব ঢেলে দিয়ে বেহেশতে যাবার সুখে জমজমের পানি দিয়ে এরাই করে স্নান!
নিত্য মসজিদে যায় কিন্তু ‘মোল্লার দৌড় মসজিদ পর্যন্ত’ কইলেই হয় তাদের অপমান!
এসব দেখে আমি লোপা বিস্ময়ে হয়ে যাই হতবাক;
হিজাবী বোনেরা দেখি টাইট জামা পরে নিতম্ব দুলিয়ে প্রেম করতে যায় ঝাঁকে ঝাঁক!
মুসলিম সমাজের এরাই মুমিন উজ্জল করিতেছে বাকি মুমিনদের সর্দি ভরা নাক! 🤪
Lopa Rahman
24.09.2019
ফেসবুক অনলাইন থেকে সংগৃহীত
ডেইলি নিউজ টাইমস বিডি ডটকম (Dailynewstimesbd.com)এর ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন করুন।

Leave a Reply

Translate »