গুগল ম্যাপে কীভাবে লোকেশন যোগ করবেন |

গুগল ম্যাপ। ডিজিটাল যোগাযোগ ব্যবস্থার এক অনন্য নাম ! জিপিএস ছাড়া উন্নত বিশ্বের দৈনন্দিন জীবন অচল। কিন্তু আমাদের দেশে অবহেলিত! দেশের ডিজিটাল ম্যাপিং এর অবস্থা খুব করুন। অনেক দেশে শুধু ব্যবহারকারীদের অবদানের জন্য নগরীগুলো ডিজিটাল ম্যাপিং এর সবোর্চ্চ শিখরে পৌছেছে। কিন্তু আমাদের দেশে কনট্রিবিউটর খুব কম। চলুন আমরা সবাই দেশকে ডিজিটাল বানাতে অবদান রাখি, আর শিখে ফেলি কিভাবে ম্যাপ এডিট করতে হয়।

গুগল ম্যাপে কী নেই? লোকজনের বাসাবাড়ির খোঁজ, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, ঐতিহাসিক স্থান, হোটেল-রেস্তোরাঁ, রাস্তাঘাট- কী পাওয়া যায় না? বিভিন্ন লোকেশনের এক বিশাল সমাহার গুগল ম্যাপস।

কিন্তু তার পরেও দেখা যায় অনেক জায়গা বাদ পড়েছে। অবশ্য বাদ পড়ে গেলেও একটি আশার কথা হলো যে গুগলে এই শূন্যস্থান পূরণ করা যায়। একজন ব্যবহারকারী চাইলে প্রয়োজন মতো লোকেশন যোগ করতে পারেন গুগল ম্যাপসে। তবে যোগ করলে সঙ্গে সঙ্গে তা প্রদর্শিত হয় না। কেননা, গুগল প্রথমে এটা রিভিউ করে। এরপরে অনুমোদন সাপেক্ষে সেটি ম্যাপে দেখা যায়।

READ MORE:পরিবেশবান্ধব রাস্তা দেখাবে গুগল ম্যাপস | GOOGLE MAPS

গুগলে লোকেশন যোগ করতে চাইলে তা যেকোনও ডিভাইস দিয়েই করা যেতে পারে। হতে পারে কম্পিউটার বা স্মার্টফোন, আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। জেনে নেওয়া যাক কম্পিউটার থেকে কীভাবে গুগল ম্যাপে লোকেশন যোগ করতে হয়।

GOOGLE MAPS

১. প্রথমে ওয়েব ব্রাউজার থেকে maps.google.com এই ঠিকানায় যেতে হবে।

 

২. এরপর ওপরের বাম পাশের ঠিকানার ঘরে ঠিকানা লিখে সেই লোকেশনে যেতে হবে।

 

৩. সাইড বারে ‘একটি জায়গা যোগ করুন’-এ ক্লিক করতে হবে।

 

৪. এরপর ঠিক লোকেশনের জায়গায় ক্লিক করে পপআপ উইন্ডোতে লোকেশনের নাম, ক্যাটাগরি (এটা অবশ্যই দিতে হবে), এরপর যেসব তথ্য দেওয়া দরকার সেগুলো টাইপ করতে হবে। গুগল যেসব লোকেশনের ক্যাটাগরি দিয়ে রেখেছে ঠিক সেগুলোই দেওয়া যাবে।

READ MORE:ফেসবুক গ্রুপ থেকে অর্থ আয়ের নতুন কয়েকটি পথ চালু হচ্ছে

৫. সব হয়ে গেলে সেন্ড বাটনে ক্লিক করতে হবে।

 

স্মার্টফোনে যেভাবে লোকেশন যুক্ত করতে হবে, অ্যান্ড্রয়েড ফোন

 

১. প্রথমে গুগল ম্যাপের অ্যাপ চালু করতে হবে।

 

২. এরপর নিচের মেনু থেকে কন্ট্রিবিউট-এ ট্যাপ করতে হবে।

 

৩. বৃত্তের মধ্যে থাকা কয়েকটি মেনুর মধ্য থেকে অ্যাড প্লেস-এ ট্যাপ করতে হবে।

 

৪. এরপর পপআপ উইন্ডোতে প্রয়োজনীয় তথ্য, যেমন- লোকেশন, নাম ও ক্যাটাগরি ইত্যাদি দিতে হবে।

 

৫. সব তথ্য ইনপুট দেওয়া হয়ে গেলে ওপরের ডান পাশে কাগজের বিমানের যে আইকনটি আছে সেখানে ট্যাপ করতে হবে। তাহলে লোকেশন অ্যাডের রিকোয়েস্টটি সেন্ড হয়ে যাবে।

READ MORE:

আইওএস ব্যবহারকারীদের জন্য যা করতে হবে

 

১. গুগল ম্যাপ অ্যাপটি চালু করতে হবে।

 

২. সার্চবারে লোকেশনটি টাইপ করে খুঁজে নিতে হবে।

 

৩. স্ক্রিনের নিচে ইনফোবারে ট্যাপ করতে হবে।

 

৪. ইনফো পেজের নিচের দিকে অ্যাড মিসিং প্লেস-এ ট্যাপ করতে হবে।

 

৫. এরপর ওপরের গুলোর মতোই লোকেশন, নাম ও ক্যাটাগরিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য যোগ করতে হবে।

 

৬. সবশেষে ওপরের ডান পাশে থাকা কাগজের বিমানের আইকনে ট্যাপ করলে অনুরোধটি গুগলের কাছে চলে যাবে রিভিউয়ের জন্য।

 

এবার গুগল লোকেশন রিকোয়েস্টটি রিভিউ করে সেটা যোগ করে দেবে। লোকেশন যোগ করার জন্য অবশ্যই গুগল অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। এরপর চাইলে সেই আইডি থেকে যেকোনও সময়ই প্রয়োজনীয় তথ্য সম্পাদনা করা যাবে। আবার নতুন নতুন ছবিও যোগ করা যাবে।

 

 

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply Cancel reply