What is a hard disk? | হার্ডডিস্ক কি ? কম্পিউটার হার্ডডিস্ক কিভাবে কাজ করে?(HDD)

hard disk, also called hard disk drive or hard drive, magnetic storage medium for a computer. Hard disks are flat circular plates made of aluminum or glass and coated with a magnetic material. Hard disks for personal computers can store terabytes (trillions of bytes) of information. Data are stored on their surfaces in concentric tracks. A small electromagnet, called a magnetic head, writes a binary digit (1 or 0) by magnetizing tiny spots on the spinning disk in different directions and reads digits by detecting the magnetization direction of the spots.

A computer’s hard drive is a device consisting of several hard disks, read/write heads, a drive motor to spin the disks, and a small amount of circuitry, all sealed in a metal case to protect the disks from dust. In addition to referring to the disks themselves, the term hard disk is also used to refer to the whole of a computer’s internal data storage. Beginning in the early 21st century, some personal computers and laptops were produced that used solid-state drives (SSDs) that relied on flash memory chips instead of hard disks to store information.

The 10 Best Hard Drives for Gaming in 2021

হার্ডডিস্কের তথ্য : ফ্রেন্ডস আপনারা নিশ্চয় জানেন একটি কম্পিউটার নানান উপাদান দ্বারা তৈরি হয়,আর তার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হচ্ছে হার্ডডিক্স। আমরা এই সাইটে আগে কম্পিউটারের অন্যান্য উপাদান সম্পর্কে আলোচনা করেছি।তাই,আজকে আমরা কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক বা হার্ডডিস্ক ড্রাইভ (HDD) কি ? তার বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব।

আমরা বিংশ শতাব্দীতে পা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা চারিপাশে ডিজিটাল ডিভাইসের মধ্যে আবদ্ধ হয়ে পড়েছি। এর সবথেকে বড় উদাহরণ হচ্ছে মোবাইল,কম্পিউটার বা অন্যান্য গ্যাজেট।এখন এগুলি ছাড়া আমরা এক মুহূর্ত চলতে পারি না।

এই পোস্টটি আপনি কোনো একটি ডিভাইস দ্বারা পড়ছেন,সেটা মোবাইল বা কম্পিউটার হতে পারে ,তাই আমি এখানে আপনাদের একটি প্রশ্ন করছি আপনি কি জানেন আপনি যে ডিভাইস টি ব্যবহার করছেন তার মধ্যে কি কি কম্পনেন্ট বা উপাদান আছে?

হয়তো অনেকেই জানেন একটি মোবাইলে ram,প্রসেসের,মেমরি ইত্যাদি থাকে,সেইভাবে কম্পিউটের ram, সিপিইউ,হার্ডডিস্ক,গ্রাফিসকার্ড,ইত্যাদি থাকে।

তবে আপনি কি জানেন এই কম্পনেন্ট গুলি কেনো দরকার পরে ? ও ওই গুলি কিভাবে কাজ করে?

যেমন- আজকের আমাদের আলোচনার বিষয় বস্তু কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক?

আপনারা কখনো চিন্তা করেছেন ছোট্ট একটি হার্ডডিস্ক 1000 ,4000 বা 8000 জিবি বা তার বেশি ডাটা কিভাবে স্টোর করতে পারে?

Best Timesheets Apps for Efficient Time Management | 35 Best apps for time management in 2022

এই পোস্টি পড়তে থাকেন এর উত্তর পেয়ে যাবেন।

ফ্রেন্ডস ,হয়তো অনেকেই জানেন ram,সিপিইউ,হার্ডডিস্ক,গ্রাফিক্স কার্ড,ইত্যাদি কিভাবে কাজ করে,তবে যে বন্ধুরা এ গুলোর সম্পর্কে জানেন না তাদের জন্য এই সাইটে আমি কম্পিউটার ও মোবাইলের বিভিন্ন উপাদান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

আপনারা তার লিংক নিচে পেয়ে যাবেন।

যাইহোক ,তাহলে চলুন দেরি না করে শুরু করা যাক, আজকের বিষয় কম্পিউটার হার্ডডিক্স কি ? হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ কিভাবে কাজ করে।

কম্পিউটার উপাদান সম্পর্কে জানুন –

হার্ডডিস্ক কিভাবে কাজ করে ? জানুন কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক সম্পর্কে-

সাধারণত আমরা কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কেনার সময় কত জিবি হার্ডডিক্স আছে সেটা দেখি।আপনারা নিশ্চয় জানেন হার্ডডিস্ক সাধারণত কম্পিউটারে স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

হার্ডডিস্কে কে অনেক নাম দ্বারা জানা যায়,কেউ একে হার্ডড্রাইভ বা হার্ডডিস্ক ড্রাইভ বলে।এছাড়া HDD ও বলা হয়ে থাকে।

হার্ডডিস্ক কি – 

ফ্রেন্ডস আমাদের যখন কম্পিউটারে এর মধ্যে data কে স্স্টোর করার দরকার পড়ে তখন হার্ডডিস্ক কে স্টোরেজ হিসাবে ব্যবহার করি।

হার্ডডিস্ক কে দুই ভাবে ব্যবহার করা যায়,এক হচ্ছে ইন্টারনাল ও এক্সট্রানাল।তবে বেশিরভাগ ইউসার রা হার্ডড্রাইভ কে ইন্টারনাল use করে।

তবে অনেক ইউসার আছে যারা স্টোরিজ কে Expand করার জন্য এক্সটারনাল হার্ডডিস্ক ব্যবহার করে।এক্সটারনাল হার্ডডিস্ক পিসিতে usb দ্বারা কানেক্ট করে এর মধ্যে ডাটা আদান প্রদান করা হয়। তবে এর স্পিড তুলনামূলক অনেক slow ইন্টারনাল হার্ডডিস্ক থেকে।

হার্ডডিস্ক কেনো দরকার পরে –

আমি আগেই বললাম,কম্পিউটারের মধ্যে বিশাল সংখ্যক ডাটাকে স্টোর ও ও ব্যাকআপ এর জন্য একটা স্টোরেজ  প্রয়োজন পড়ে এর জন্য আমরা হার্ডডিস্ক কে ব্যবহার করি।

আপনার কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম থেকে আরম্ভ করে,যত সফটওয়্যার ও তাদের ফাইল আছে, যত  পার্সোনাল ডাটা মজুত আছে সে সমস্ত কিছুই হার্ডডিক্স এর মধ্যে স্টোর থাকে।

এই ডাটা কে আপনি নিজের কন্ট্রোলে রাখতে পারবেন,মানে আপনি চাইলে এই ডাটা মুছে দিতে বা কপি পেস্ট করে মুভ করতে পারবেন।এই ডাটা হার্ডডিস্ক এ স্টোরেজ থাকে বলে সম্ভব।

এখানে আমি একটি ছোট্ট উদাহরণ দিচ্ছি আপনার মোবাইলের মধ্যে যে ইন্টারনাল স্টোরেজ থাকে সেখানে অ্যাপস থেকে আরম্ভ করে ক্যামেরা ছবি,ভিডিও,mp3 আরো বিভিন্ন ফাইল মজুদ থাকে, সেগুলি ইন্টারনাল স্টোরেজ মধ্যে সংরিক্ষিত আছে তাই অ্যাক্সেস করতে পারেন।

ঠিক কম্পিউটারের মধ্যে হার্ডডিক্স থাকার ফলে সেই ডাটা কে আপনি অ্যাক্সেস করতে পারেন।তবে মনে রাখবেন মোবাইলের মধ্যে যে স্টোরেজ ব্যবহার করা তার টেকনোলেজি আলাদা।এটি আমরা পরে আলোচনা করবো।

হার্ডডিস্ক কিভাবে কাজ করে –

আমরা স্টরেজ কে সাধারণত ইউজ করি যখন কোন ডিভাইস বন্ধ থাকে তখন আমাদের ডাটা কে সে স্টোর করে রাখতে পারে তারজন্য। ফলে পুনরায় যখন আমরা ওই ডিভাইসকে চালু করি তখন আমাদের পূর্বের ডাটাকে অ্যাক্সেস করতে পারি।

কেননা কম্পিউটার কে আমরা সবসময় অন করে রাখতে পারি না ,তাই যখন কম্পিউটার অফ থাকে তখন হার্ডড্রাইভ কম্পিউটার এর সমস্ত ডেটাকে স্টোর করে রাখে, ফলে আমরা যখন পুনরায় কম্পিউটার চালু করি আমরা সেই ডেটাকে অ্যাক্সেস করতে পারি।

এবার হার্ড ড্রাইভ এটা কিভাবে করে সেটা একটু ভেঙ্গে জানার চেষ্টা করি।

ফ্রেন্ডস ,হার্ডড্রাইভ এমন একটি material (উপাদান) ইউজ করে সেটিকে ম্যাগনেটিজম (magnetism/চুম্বক) বলা হয়।

আমার বা আপনার সবার কম্পিউটারের মধ্যে যে হার্ডডিক্স আছে সেটির মধ্যে ম্যাগনেটিজম material ব্যবহার করা হয়। আজ বহু বহু বছর ধরে এই টেকনোলজি ইউজ হয়ে আসছে।

কম্পিউটার সাধারণত বাইনারি নম্বর 0 ও 1 এর সংকেত বুঝতে পারে।কম্পিউটার এর সমস্ত প্রসেসসিং 0 ও 1 এর সংকেত দ্বারা প্রসেস হয়।

সেই ভাবে একটি হার্ডডিক্স এর মধ্যে সমস্ত ডাটা 0 ও 1 রূপে স্টোর হয়।

হার্ডডিক্স এর মধ্যে এক বা একধিক disk থাকে যেটা  5600,7200 rpm স্পিড এ ঘুরতে থাকে।এই disk টি মধ্যে ferromagnetic material থাকে ফলে এটি সহজে magnetic চার্জ হতে পারে।

একটি হার্ড্রাইভ এর কোটি কোটি magnetic region দ্বারা ভাগ করা থাকে, এই এক একটি magnetic region তাদের polarity নেগেটিভ (-) বা পসিটিভ (+) এ রূপান্তিত হতে পারে।ফলে একটি magnetic region এক একটি বাইনারি ডিজিট কে রিপ্রেজেন্ট করে ।

যথা একটি পসিটিভ (+) magnetic চার্জ  1 ও নেগেটিভ (-) magnetic চার্জ 0 বাইনারি ডিজিট কে রিপ্রেজেন্ট করে।

হার্ডডিক্স এর মধ্যে ডিস্ক স্পিন করতে থাকে ও একটি actuator arm যেটা ডিক্সের খুব কাছাকাছি থাকে।এই actuator arm সাধারণত ডিস্ক এর মধ্যে ম্যাগনেটিক চার্জ আদান-প্রদান করে,যেটা আমরা রিডিং এবং রাইটিং ইনফর্মেশন আদান প্রদান বলে থাকি।

যখন আপনি কোন ছবি ডাউনলোড করেন বা কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করেন তখন হার্ডডিক্স এর মধ্যে এই actuator arm একটি লম্বা magnetic প্যাটার্ন যথা প্লাস মাইনাস (-+) ম্যাগনেটিক চার্জ ডিস্ক এর মধ্যে রিলিজ করে এটা কে রাইটিং(Writing) প্রসেস বলা হয়।

আর আপনি যখন কোনো সফটওয়্যার রান করেন বা ছবি ওপেন করেন তখন actuator arm ওই magnetic প্যাটার্ন যেখানে স্টোর আছে সেখানে যায় তারপর আপনার কম্পিউটার এর সিপিইউ বা ram যেখানে দরকার পরে যেখানে পাঠিয়ে দেই ,একে রিডিং (Reading) প্রসেস বলা হয়।

মর্ডান হার্ডডিক্স এর মধ্যে মাল্টিপল ডিস্ক থাকে এবং ডিস্ক এর উভয় দিকেই ডাটা স্টোর করা যায়।

SSD এর উত্থান –

ইন্টার্নাল হার্ড ড্রাইভ বিভিন্ন সাইজের হয়ে থাকে,আগে 500gb হার্ডডিক্স sufficient ছিল,কেননা তখন সফটওয়্যার বা বিভিন্ন ফাইল এর size অনেক কম ছিল।

কিন্তু বর্তমান সময়ে 500gb স্টোরেজ একটি মোবাইলে দেখতে পাওয়া যায়, তাই এখন কম্পিউটার এর মধ্যে সাধারণত 1TB,2 TB বা তার বেশি হার্ডডিস্ক দেখা যায়।

আগের তুলনায় HDD এখন অনেক সস্তা ও এর চাহিদা কমেছে।ইটা পুরোপুরি SSD (Solid-state drive) ড্রাইভ এর কারণে।আমি খুব তাড়াতাড়ি SSD ড্রাইভ সম্পর্কে বিস্তারিত একটি পোস্ট লিখবো যেটা একটা অন্য টেকনোলজি।

বর্তমানে কম্পিউটারের মধ্যে বেশিরভাগ SSD ব্যবহার এর কারণ হচ্ছে, SSD HDD এর তুলনাই অনেক ফাস্ট ও size এ অনেক ছোটো।তবে SSD এর দাম অনেক বেশি তাই পিসি তে SSD ও HDD দুই ব্যবহার করা হচ্ছে।

কিন্তু ভবিষৎতে SSD এর দাম কমে গেলে হার্ডডিক্স এর ব্যবহার বিলীন হয়েযাবে।তখন হয় তো ব্যাকআপ  বা অন্যান্য ডিভাইস এ শুধু ব্যবহার হবে।

types of hard disk, what is hard disk in laptop, hard disk definition and function hard disk price, hard disk storage capacity, list uses of hard disk external, hard disk hard disk internal

Leave a Reply

Translate »