করোনা নিয়ে অনেকে যাচ্ছে মসজিদে, ঘুরছে বাজারেও

করোনায় আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে অবাধে ঘুরছেন লোকজন। কোনোভাবেই তাঁদের দমানো যাচ্ছে না। এলাকার মসজিদের মাইকে প্রচার করে বারণ করলেও আক্রান্ত রোগীরা মসজিদে নামাজ পড়তে আসছেন। সেই সাথে ইজিবাইক ছাড়াও অন্যান্য যানবাহন ব্যবহার করে বাজারে এসে ঘুরা-ফেরা করছেন। ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। হাসপাতাল সূত্র জানায়, সোমবার ৩৬ জন নমুনা টেস্ট দেন। তার মধ্যে ১৬ জন করোনা পজেটিভ।এনিয়ে ১২ দিনে মোট ১১৪ জন করেনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ জন। তার মধ্যে পুরুষ ৬২ ও নারী ৫২জন। জানা যায়, গত দুইদিনে চন্ডীপাশা ইউনিয়নের ঘোষপালা আমলীতলা নামক এলাকায় প্রায় ছয়জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদেরকে হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিতে বলা হলেও বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা নিবেন; এই বলে চলে গেলেও ঘরে না থেকে বিভিন্ন জায়গায় চলাফেরা করছেন। স্থানীয় মসজিদে প্রতি ওয়াক্তে অনেকেই আসছেন নামাজ পড়তে। আবার কেউ বা বাজারে এসে চায়ের দোকানে আড্ডা মারছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তাঁদের মুখে নেই কোনো মাস্ক। অবাধে বিচরণ করছেন সাধারণদের সঙ্গে।

সোমবার আমলীতলা বাজারে অনেকইে আসতে দেখা গেছে। নান্দাইল ঘোষপালা জামে মসজিদের ইমাম মো. জসিম উদ্দিন জানান, তিনি গত রবিবার বাদ মাগরিব মসজিদের মাইকে বলে দিয়েছেন যারা করোনার রোগী তাঁরা যেন মসজিদে না এসে নামাজ বাড়িতে পড়েন। কিন্তু অনেকেই তা না মেনে মসজিদে আসছেন। করোনা পজেটিভ একজন বলেন, ‘আমার পজেটিভ ঠিক আছে, কিন্তু কোনো উপসর্গই নাই। তাহলে ঘরে থাকবো কেন।’ নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (ইউএইচও) ডা. মাহমুদুর রশিদ জানান, এটা খুবই ভয়ানক অবস্থা। অনেকেই আবার উপসর্গ থাকার পরও বাইরে বের হচ্ছেন, ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

কিন্তু টেস্ট করাচ্ছেন না। হাসপাতালেও যাচ্ছেন না। আবার কেউ কেউ আছেন তাদের উপসর্গ প্রকাশ পায়নি। কিন্তু টেস্টে পজেটিভ আসছে। নান্দাইল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল মনসুর জানান, এটা সামাজিকভাবে মোকাবেলা করতে হবে। কারণ এখন আর বাড়ি বাড়ি গিয়ে বলার সুযোগ নাই।

 

আরও পড়ুন:মেয়েরা এই ১০ টি কাজ গোপনে করে থাকে, কখনো স্বীকার করেনা

 

ডেইলি নিউজ টাইমস বিডি ডটকম (Dailynewstimesbd.com)এর ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব ও ফেসবুক পেইজটি ফলো করুন করুন।

Leave a Reply

Translate »