গোপালগঞ্জে অগ্নিদগ্ধ সেই নারীর মৃত্যু, ঘাতক দেবর গ্রেফতার

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দেবরের দেয়া আগুনে দগ্ধ হওয়া সুফি বেগম মারা গেছেন। বুধবার (১১ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ৭টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে নিহতের বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে। এদিকে, এ ঘটনায় ঘাতক দেবর লিয়াকত মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিরোজ আলম জানান, মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) রাতেই ঢাকা থেকে লিয়াকত মোল্লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর তাকে কাশিয়ানীতে আনা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কাশিয়ানীর সাজাইল ইউনিয়নের বাঘঝাপা গ্রামের ইউসুফ আলী মোল্লা ও তার ভাই লিয়াকত মোল্লার দীর্ঘদিন ধরে পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। তারা দুইজনেই অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য। অভিযুক্ত লিয়াকত মোল্লা পৈতৃক সম্পত্তির নিজের অংশ আগেই বিক্রি করে চলে যায়। তবে এখনো সে সম্পত্তি দাবি করে। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জেরে মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে তার ভাবী সুফি বেগমকে বাড়ির উঠানের গাছের সাথে বেঁধে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে সুফি বেগম গুরুতরভাবে অগ্নিদগ্ধ হন। আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে কাশিয়ানী স্বাস্থ্য কেন্দ্র এবং পরে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

 

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: