মেথি খেলেই কমবে অতিরিক্ত মেদ | মেথি দিয়ে ব্যায়াম ছাড়াই মেদ কমান | ওষধ, ব্যায়াম ছাড়াই ওজন কমান weight Loose

শরীরে অতিরিক্ত মেদ! মেদ কমাতে কতরকমই না চেষ্টা করি আমরা। জিম, যোগব্যায়াম, ডায়েটিং, ক্ষতিকারক পানীয় বাদ দেওয়া— চেষ্টারর শেষ নেই।

নতুন জামা-জুতোর সঙ্গে চেহারাকেও ঝাঁ চকচকে করে নেওয়ার এই তো সময়! তা সবকিছুই যখন করছেন, তা হলে ঘরোয়া উপায়কেই বা বাদ রাখেন কেন? আমাদের রান্নায় ব্যবহৃত এমন অনেক মশলা আছে, যা কিন্তু সহজেই শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে তাকে সুন্দর একটা আকার দেয়। যেমন: মেথি।

কিন্তু মেথিকে ঠিক কী উপায়ে ব্যবহার করলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরে আপনাকে সুন্দর দেখাবে, জানেন?

মেথি চা: চা তো খান রোজ, এ বার সেই চায়েই যোগ করুন কয়েকটা মেথির বীজ। হজমশক্তি তো বাড়বেই, সঙ্গে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণও হবে।

আচ্ছা বেশ, স্বাদ নিয়ে ভাবনা এলে, এমন চায়ে যোগ করে দিন এলাচ বা আদা। তা কী করে বানাবেন? মেথিবীজ বেঁটে নিন বাড়িতেই। এ বার জল ফুটিয়ে তাতে সেই পেস্ট মেশান। এ বার এতে চা যোগ করে ফুটিয়ে নিন কিছু ক্ষণ। খালি পেটে এমন চা খেলে মেদ ঝরবে খুব সহজে।

মেথির পানি: পুরনো আমলের মানুষরা পেট গরম হলেই মেথির পানি খাওয়ার পরামর্শ দিতেন। পেট ঠান্ডা করার পাশাপাশি এটি কিন্তু খিদেও কমায়। খাওয়ার ইচ্ছা কমে যায় বলে স্বাভাবিক ভাবেই ওজন নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা নেয় এই পানীয়।

কী ভাবে খাবেন? খুব সহজ পদ্ধতি। এক কাপ মেথি সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তার পর সকালে পানি ছেঁকে নিয়ে খান।

অতিরিক্ত মেদের কারণে কোনো ভালো পোশাক পড়লেও ভালো লাগে না।  জিম, যোগব্যায়াম, ডায়েটিং, ক্ষতিকারক পানীয় বাদ দেওয়াসহ সব চেষ্টাই চলে। তবে এত কষ্ট না করেই ঘরোয়া উপায়েই এই মেদ সমস্যার সমাধান সম্ভব। সেক্ষেত্রে রান্নায় ব্যবহৃত মেথি সহজেই শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে সুন্দর একটা আকার দেয়।
মেথি খেলেই কমবে

কিন্তু মেথিকে ঠিক কী উপায়ে ব্যবহার করলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরে ব্যক্তিকে সুন্দর করে তুলবে সেটা জানা জরুরি। পাঠকদের জন্য তা তুলে ধরা হলো :

মেথি-পানি : পুরনো আমলের মানুষরা পেট গরম হলেই মেথির পানি খাওয়ার পরামর্শ দিতেন। পেট ঠান্ডা করার পাশাপাশি এটি কিন্তু খিদেও কমায়। খাওয়ার ইচ্ছা কমে যায় বলে স্বাভাবিকভাবেই ওজন নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা পালন করে এই পানীয়। এক কাপ মেথি সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে তা সকালে ছেঁকে নিয়ে খেতে হবে।

অঙ্কুরিত মেথি: ভিটামিন ও নানা খনিজে পূর্ণ মেথিবীজ আরও এক উপায়ে খাওয়া যেতে পারে। যদিও তা একটু সময়সাপেক্ষ। একটা পাত্রে মেথিবীজ নিয়ে তার উপর একটা ভিজে কাপড় ঢাকা দিয়ে রাখুন। মাঝে মাঝেই কাপড়টিতে পানি দিন। দিন তিনেক পর মেথি বীজের অঙ্কুরোদ্গম হবে। এই অঙ্কুরিত মেথি খেলে তা খুব সহজেই কমিয়ে দেবে শরীরের মেদ।

মেথি গুঁড়ো : মেথিতে রয়েছে উচ্চ মাত্রায় ক্যারোটিনয়েড, যা দ্রুত ওজন কমাতে সক্ষম। বাজারে মেথি গুঁড়োর উপর ভরসা না করে, বাড়িতেই শুকনো খোলায় মেথি ভেজে গুঁড়িয়ে নিন। এরপর তা গরম পানিতে মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন। এই পানিতে লেবু ও মধুও মেশানো যেতে পারে। মেথিগুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন তরকারিতেও। এতে সহজেই কমবে পেটের মেদ।

মেথি চা : চা তো প্রতিদিনই খাওয়া হয়। তবে এবার সেই চায়েই যোগ করুন কয়েকটা মেথির বীজ। হজমশক্তি তো বাড়বেই, সঙ্গে রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণ হবে। তবে স্বাদ পেতে চায়ে এলাচ বা আদা দেওয়া যেতে পারে। এটা বানাতে মেথিবীজ বাড়িতেই বেঁটে নিতে হবে। এ বার পানি ফুটিয়ে তাতে সেই পেস্ট মেশাতে হবে। এবার এতে চা যোগ করে কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নিতে হবে। এরপর খালি পেটে এমন চা খেলে মেদ ঝরবে খুব সহজেই। খবর বাংলাদেশ জার্নাল।

অঙ্কুরিত মেথি: ভিটামিন ও নানা খনিজে পূর্ণ মেথিবীজ হজমে সহায়ক সে কথা তো আগেই বলেছি। আর এক উপায়েও খেতে পারেন মেথি। যদিও তা একটু সময়সাপেক্ষ। একটা পাত্রে মেথিবীজ নিয়ে তার উপর একটা ভিজে কাপড় ঢাকা দিয়ে রাখুন। মাঝে মাঝেই কাপড়টিতে জল দিন। দিন তিনেক পর মেথি বীজের অঙ্কুরোদ্গম হবে। এই অঙ্কুরিত মেথি খেলে তা খুব সহজেই কমিয়ে দেবে শরীরের মেদ।

মেথি গুঁড়ো: মেথিতে রয়েছে উচ্চ মাত্রায় ক্যারোটিনয়েড, যা দ্রুত ওজন কমাতে সক্ষম। বাজার চলতি মেথি গুঁড়োর উপর ভরসা না করে, বাড়িতেই শুকনো খোলায় মেথি ভেজে গুঁড়িয়ে নিন। এর পর তা গরম জলে মিশিয়ে খান। এই জলে লেবু ও মধুও মেশাতে পারেন। মেথিগুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন তরকারিতেও। দেখবেন, ফল মিলছে হাতেনাতে।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply

Translate »