লিঙ্গ মোটা করার উপায় | মাত্র কয়েকদিনেই লিঙ্গ বড় | শক্ত ও মোটা হবে।

লিঙ্গ মোটা ও লম্বা করার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য়

অনেক পুরুষ মনে করেন যে লিঙ্গ মোটা ও লম্বা হওয়া তাকে অনেক বেশি সুখী ও আকর্ষনীয় করে তুলবে। কিন্তু, কথাটি সম্পূর্ণ ভুল | আপনি তখনি সুখী হবেন যখন আপনার লিঙ্গ উথান জনিত কোনো সমস্যা থাকবে না । লিঙ্গ মোটা ও লম্বা হওয়ার চেয়ে জরুরি লিঙ্গ অনেক বেশি শক্ত হওয়া। আজ থেকে লিঙ্গের সাইজ নিয়ে কখনোই দুশ্চিন্তা করবেন না । পুরুষের মোটা লিঙ্গ ও ছোট লিঙ্গ নিয়ে কিছু কথা পরিষ্কার করা যাক –
১. Clemson University এর এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে ,পুরুষের এভারেজ লিঙ্গের আকার প্রায় ৫.১ ইঞ্চি ।
২. অন্য একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে ৯০% মহিলারা তাদের পার্টনার এর লিঙ্গের সাইজ নিয়ে এতটা ভাবেন না । কারণ, সেক্স বিষয়টি সম্পূর্ণ আলাদা । আপনি একটি নারীকে লম্বা মোটা লিঙ্গ দিয়ে ৩-৪ ঘন্টা ধরে ইন্টারকোর্স করলেই যে সে আনন্দ পাবে এর কোনো গ্যারান্টি নেই । বিশ্বাস না হলে আপনার যৌন সঙ্গীকে জিজ্ঞেস করে দেখবেন । সেক্স করার পূর্বে দেখতে হবে আপনার নারী পার্টনার সেক্স করার জন্য প্রস্তুত কিনা নতুবা সারাদিন সঙ্গম করেও আপনি তাকে আনন্দ দিতে পারবেন না । সেক্স এডুকেশন নিয়ে অন্য কোনো আর্টিকেলে আমরা এই বিষয় গুলো নিয়ে জানার চেষ্টা করবো ।

ভারতে সমাজবিধ্বংসী স্বামী-স্ত্রী বদল চক্রের সন্ধান, গ্রেফতার ৭

 

৩.৮৫% নারী তাদের সঙ্গীর লিঙ্গের যে আকার আছে সেটা নিয়েই তারা সুখী । তাই লিঙ্গ মোটা হওয়ার চিন্তায় পরে থাকবেন না । আপনার উচিত পুষ্টিকর ভেষজ খাদ্য খাওয়া যেন সঙ্গমের সময় কোনো লিঙ্গ উথান জনিত সমস্যায় না পড়েন ।

৪. শুধুমাত্র ৫৫% পুরুষ তাদের লিঙ্গের আকার নিয়ে সন্তুষ্ট । তাহলে বাকি ৪৫% কি অসুখী? আসলে তারাও সুখী কিন্তু তাদের মনে ভয় , এই বুঝি তারা ছোট লিঙ্গ নিয়ে তাদের সঙ্গীকে তৃপ্তি দিতে পারবে না । আল্লাহ মহান, মেয়েদের এমন ভাবে তৈরি করেছেন যে তাদের যৌনির ভিতর দেড় ইঞ্চি পরেই যে খাঁজকাটা থাকে তা লিঙ্গের ঘর্ষণ লাগলেই নারী তৃপ্তি পায় । যাদের লিঙ্গ চিকন তারা পজিশন চেঞ্জ করে সঙ্গম করতে পারেন যেমন নারী উপরে পুরুষ নিচে। মনে রাখবেন, লিঙ্গ মোটা ও লম্বা হওয়া কোনো গুরুত্তপূর্ণ বিষয় না । আজ থেকে আপনার যা আছে তাই নিয়েই সুখে থাকার চেষ্টা করুন । আর হা বাজারে পাওয়া কোনো প্রকার লিঙ্গ মোটা করার পিল অথবা ক্রীম ব্যবহার করবেন না যা খুবই ক্ষতিকর । অধিকাংশ মেডিকেল অথরিটি মেনে নিয়েছেন যে, কোনো প্রকার পিল, ভাকুম মেশিন অথবা অন্য কোনো গ্যাজেট যা বিজ্ঞাপন করা হয় তার কোনোটাই লিঙ্গ মোটা ও লম্বা করতে কার্যকরী না। তবে লিঙ্গ কিছুটা মোটা ও লম্বা হয় ভেষজ ঔষধের মাধ্যমে ।

Ayuharba বাজীকরণ ওষুধ – খুবই কার্যকরী

 

যৌন উত্তেজক ঔষধ এর নাম এবং কিভাবে কাজ করে?

Ayuherba এর তৈরিকৃত বাজীকরণ ওষুধটি নিয়মিত খেলে লিঙ্গ উথান জনিত সমস্যা থেকে রেহাই পাবেন এবং লিঙ্গ বেশ মোটা হবে । এই ভেষজ ওষুধটি সম্পূর্ণ কেমিকেল মুক্ত ১০০% নিরাপদ যা আপনার ইরেক্শন সমস্যা দূর করবে এবং লিঙ্গ কিছুটা লম্বা ও মোটা করবে । লিঙ্গ লম্বা ও মোটা তখনি হবে যখন সঙ্গমের সময় আপনার লিঙ্গে রক্তের সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে । আয়ুহারবার তৈরিকৃত বাজীকরণ ওষুধটি যদি নিয়মিত খান তাহলে লিঙ্গে রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে এবং উথান জনিত সমস্যা দূর হবে । এই ওষুধটি ভেষজ উপাদান দিয়ে তৈরি যা খুবই কার্যকরী ও নিরাপদ । বিস্তাতির জানতে এখানে ক্লিক করুন 

 

লিঙ্গ বড় করার তেল :

 

 

বাজারে অনেক তেল বা মালিশ পাওয়া যায়। যা আসলে কতটুকু কাজ করে আমার জানা নাই। তবে আমি একটি ফর্মুলা দিতে পারবো। যা আপনি নিজে সংগ্রহ করে, লিঙ্গে নিয়মিত মালিশ করলে, আশা করি কিছু ফল পাবেন। অন্তত বাজারে প্রচলিত তেল বা মলমের চেয়ে ভাল কাজ করবে। এবং শারীরিক কোন ক্ষতি করবেনা। কারন এটা প্রকৃতিক ফর্মুলা ও একধরনের ব্যায়াম।

 

 

লিঙ্গ মোটা করার ফর্মুলা :

 

 

প্রথমে একটি নির্দিস্ট পরিমানে তিলের তেল, তিশির তেল। এবং ভেন্না/ভেরেন্ডা বা ক্যাস্টর অয়েল যে নামেই চিনেন। ও সরিষার তেল এর সাথে আরও ২ টা তেল মিশিয়ে নিবেন। এর মধ্যে কালোজিরার তেলটা সহজে পেলেও কিউবাব অয়েল একটু দূর্লভ। তাই কোন সুপার শপ থেকে বা অনলাইন মার্কেট থেকে কিউবাব অয়েল কিনে নিতে হবে। কিউবাব অয়েল মুলত কাবাব চিনি নামক বীজ থেকে তেল আহরন করা হয়। এই ছয়টি তেল সমপরিমান নিয়ে, একটি বোতলে ভরে মিশিয়ে নিবেন। ব্যাস, হয়ে গেল লিঙ্গ বড় করার ফর্মুলা।

সন্তান কথা শোনে না? জেনে নিন করণীয়

লিঙ্গে মালিশ করার নিয়ম :

প্রতিদিন গোসলের পর ও রাতে শোয়ার আগে, লিঙ্গে মালিশ করবেন। এমনভাবে মালিশ করতে হবে। প্রথমে লিঙ্গের গোড়া থেকে আস্তে আস্তে আগার দিকে, একটু চেপে ধরে হাত নামাবেন। হাতে খুব বেশী পরিমান তেল নিবেননা। অল্প তেল নিয়ে কয়েকবার এই নিয়মে মালিশ করুন। বেশী উত্তেজিতো হওয়ার চেস্টা করবেননা। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। সকাল ও রাতে এই নিয়ম চালিয়ে যান। ২ মাসে আপনার নরম কোষকলার রক্তসঞ্চালন আগের চেয়ে কয়েকগুন বেড়ে যাবে। এবং লিঙ্গ শক্ত ও মোটাও হবে। এই ব্যায়াম ও মালিশ করতে গিয়ে বীর্যপাত ঘটাবেননা। ধৈর্য ধারন করতে হবে। শতভাগ সফল হতে পারবেন। প্রিতিদিন ১ বারে ২৫ টান করে দিনে ২ বার মালিশ করলে, লিঙ্গে ৫০ টান হবে। স্বাভাবিকভাবে লিঙ্গ একটু লম্বা হবে। শুধু লম্বা নয় মোটা ও শক্তও হবে।

ইউনানী মালিশ তিলা জাদীদ লিঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন

বিভিন্ন বৈধ ইউনানী ঔষধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান তিলা জাদীদ গ্রুপের তেল বা মালিশ লিঙ্গোত্থানজনিত দূর্বলতা, লিঙ্গবক্রতা, ও লিঙ্গশিথীলতার জন্য বাজারজাত করে আসছে। এর মধ্যে ফেনড্রাগ ল্যাবঃ অন্যতম। একসময় আমরা এসব দূর্লভ নিরাপদ ঔষধগুলো সরবরাহ করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠাতাম, কিন্তু কালের বিবর্তনে এখন শুধু ফোনে সময় নস্ট করার কারনে, এই সেবা এখন বন্ধ আছে। তাই সাধারন মানুষ যেন উপকৃত হয়, সেজন্য ঔষধের নামটি সবাইকে জানিয়ে দিলাম। পারলে সংগ্রহ করে নিবেন। ৪-৬ ফোটা তেল লিঙ্গের গোড়া থেকে অগ্রভাগের দিকে আলতোভাবে কয়েকবার মালিশ করবেন। দিনে ২ বার অন্তত ২ মাস।

 

লিঙ্গ মোটা ও বড় হওয়ার সহজ উপায়

হারবাল অয়েলে পুরুষাঙ্গ মোটা করার উপায় :

 

 

বাজারে প্রচলিত লিঙ্গ মোটা করার তেল যা পাওয়া যায়। তাতে কতটুকু কাজ হয় জানিনা। তবে কিছু কেমিক্যাল যুক্ত তেল বা মালিশ অথবা মলম যেগুলো পাওয়া যায়। তাতে মারাত্মক ক্ষতির আশংকা থাকে। এটা কৃত্রিমভাবে ইন্সট্যান্ট রক্তসঞ্চালন বাড়িয়ে দেয়। ফলে তাৎক্ষনিক লিঙ্গো মোটা ও শক্ত দেখায়। এবং সেনসিটিভিটি দূর করে মিলনে দীর্ঘস্থায়ী করে। কিন্তু এভাবে নিয়মিত ব্যবহারের ফলে, এই প্রক্রিয়া ছাড়া সংঘম করা সম্ভব হয়না। একপর্যায়ে এই মলম, তেল বা মালিশ ব্যাতিত লিঙ্গ শক্তই হয়না। তাই আমি সাজেশন করবো, এ ধরনের কেমিক্যালযুক্ত ঔষধ ব্যাবহার না করে, নিজে প্রকৃতিক তেল বানিয়ে নিন।

ঘুমের মধ্যে কখনো কি পায়ের পেশিতে টান পড়ে?

 

এই নিয়মে একবার ব্যাবহার করে দেখুন। লিঙ্গ মোটা করার উপায় নিয়ে, লেখাটা ভাল লাগলো কিনা জানাবেন। মাঝে মধ্যে rugbalai বা রোগবালাই লিখে গুগলে সার্চ করে পড়বেন। আরও অনেক কিছু জানতে পারবেন। সুস্থ্য থাকবেন।

Leave a Reply Cancel reply